গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই শেষ ষোলোয় ব্রাজিল

0
249

র্স্পোটস ডস্কেঃ
প্রথম ম্যাচটা ছিল হতাশায় মোড়ানো। পরের ম্যাচে শেষের ঝলকে কেটে গিয়েছিল সেই হতাশা। শেষ ম্যাচে এসে দেখা মিলল চিরচেনা ব্রাজিলের। তাতে সেলেসাওরা পেল অনায়াস জয়। সার্বিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই শেষ ষোলোয় উঠেছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

গ্রুপের অন্য ম্যাচে কোস্টারিকার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে ব্রাজিলের সঙ্গী হিসেবে শেষ ষোলোয় উঠেছে সুইজারল্যান্ড। তিন ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে ব্রাজিল হয়েছে ‘ই’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন। ৫ পয়েন্ট নিয়ে সুইজারল্যান্ড হয়েছে রানার্সআপ।

আগামী সোমবার সামারায় শেষ ষোলোয় ‘এফ’ গ্রুপের রানার্সআপ মেক্সিকোর বিপক্ষে খেলবে ব্রাজিল। পরের দিন সেন্ট পিটার্সবার্গে একই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন সুইডেনের মুখোমুখি হবে সুইজারল্যান্ড।

ড্র করলেই শেষ ষোলো নিশ্চিত- এমন সমীকরণে মস্কোর স্পার্তাক স্টেডিয়ামে বুধবার সার্বিয়ার বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল ব্রাজিল। অন্যদিকে সার্বিয়ার জয়ের কোনো বিকল্প ছিল না। এদিন আগের ম্যাচের একাদশ থেকে কোনো পরিবর্তন আনেননি ব্রাজিল কোচ তিতে। কিন্তু ম্যাচের দশ মিনিটে বড় ধাক্কা খায় ব্রাজিল।

চোটের কারণে ব্রাজিল আগেই হারায় দানিলো ও দিয়েগো কস্তাকে। সার্বিয়ার বিপক্ষে চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার মার্সেলো। তার জায়গায় এবারের আসরে প্রথমবারের মতো মাঠে নামেন ফিলিপে লুইস। ব্রাজিলের গুছিয়ে উঠতে তাই একটু সময় লেগেছে।

২৫ মিনিটে ব্রাজিলের প্রথম ভালো সুযোগটা পান নেইমার। কিন্তু পিএসজির এই ফরোয়ার্ডের শট ফিরিয়ে দেন সার্বিয়ার গোলরক্ষক ভ্লাদিমির স্টজকোভিচ।

৩৬ মিনিটে ব্রাজিলকে লিড এনে দেন পাওলিনহো। মাঝমাঠ থেকে ফিলিপে কুতিনহো লম্বা করে ক্রস দিয়েছিলেন। সেই বল ধরে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে জালে পাঠান বার্সেলোনার মিডফিল্ডার পাওলিনহো।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ব্যবধান বাড়ানোর ভালো সুযোগ এসেছিল ব্রাজিলের সামনে। লুইসের ফ্লিক থেকে বক্সের মধ্যে বল পেয়েছিলেন নেইমার। তবে নেইমারের শট উড়ে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে।

প্রথমার্ধে গোল খাওয়ার পর কিছুটা রক্ষণাত্মক হয়ে পড়েছিল সার্বিয়া। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণে ধার বাড়ায় তারা। প্রথম দশ মিনিটে ভালো দুটি সুযোগও এসেছিল। কিন্তু মিরান্ডা, সিলভাদের গড়া রক্ষণে তারা প্রতিহত হয়েছে।

সার্বিয়া সবচেয়ে বড় সুযোগটা পেয়েছিল ৬১ মিনিটে। এডাম ল্যাজিকের ক্রস পাঞ্চ করতে গিয়ে ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেননি ব্রাজিল গোলরক্ষক অ্যালিসন। বক্সের ভেতর থেকে হেড নেন আলেকজান্ডার মিত্রভিচ। কিন্তু তার হেড লাগে ব্রাজিলের এক ডিফেন্ডারের পায়ে।

উল্টো ৬৮ মিনিটে আরেকটি গোল হজম করে সার্বিয়া। ব্রাজিলকে ২-০ গোলে এগিয়ে দেন থিয়াগো সিলভা। নেইমারের কর্নার কিক থেকে আসা বল হেডে জালে পাঠান এই ডিফেন্ডার।

শেষ দিকে ব্যবধান বাড়ানোর ভালো দুটি সুযোগ পেয়েছিলেন নেইমার। কিন্তু পিএসজির এই ফরোয়ার্ডকে দুবারই গোলবঞ্চিত করেন সার্বিয়ান গোলরক্ষক।