গোপালগঞ্জে জমিজমা সংক্রান্ত সংঘর্ষে নিহত ২ আহত ১০

0
310

টুঙ্গিপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় ঘরের চালের পানি প্রতিবেশীর জায়গাতে পড়াকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে নিহত ২ আহত ১০। নিহতরা হলো মন্টু শেখ (৫০) ও হাবিবুল্লা শেখ (২৫) এঘটনায় আহত হয়েছে আরো অন্তত ১০ জন।

রবিবার টুঙ্গিপাড়া উপজেলার ডুমুরিয়া ইউনিয়নের মধুখালি গ্রামে সকাল ৭ টায় দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, ঐ গ্রামের বাবুল শেখ(৫০) একটি টিনের ঘর তৈরি করে।শনিবার রাতে বৃষ্টি হলে বৃষ্টির পানি পাশের প্রতিবেশী ইউনুসের জায়গায় পড়ে।ঐসময় ইউনুস শেখ এবং বাবুল শেখের মধ্যে ঐ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয়।এরপর ইউনুস শেখ তার প্রতি চড়াও হলে তাদের মাঝে হাতাহাতি হয়।সংঘর্ষের একপর্যায় মন্টু শেখ ও হাবিবুল্লাহ শেখ গুরুতর আহত হলে তাদেরকে প্রথমে টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ কমপ্লেস্কে আনা হলে অবস্থার অবনতি হলে গোপালগঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাদের অবস্থা আরো সংকটাপর্ন হলে মন্টুকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে সেখানে তার মৃত্যু হয় এবং হাবিবুল্লাহ শেখ ঢাকা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হলে পথেই তার মৃত্যু হয়।আহতরা টুঙ্গিপাড়া,গোপালগঞ্জ এবং খুলনার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
নিহত হাবিবুল্লা শেখের ভাবি শামিমা আক্তার (২৫) বলেন, মূলত ঘরের চালের পানি নিয়ে এই ঘটনা না।এর পেছনে রয়েছে পূর্বের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ।বাবলু শেখ মন্টু শেখের ফুফুদের অংশের জমি কিনে নেন।বাবলু শেখ তার ক্রয়কৃত জমিতে ঘর তুলতে গেলে মন্টু শেখ বাধা দেয়।এই নিয়ে তাদের মাঝে দির্ঘদিন যাবত বিরোধ চলছে। ঐ জমি নিয়ে আদালতে মামলা রয়েছে।
রবিবার সকালে ইউনুস ও বাবলু শেখের মধ্যে বাড়ির উঠানে কথা কাটাকাটি হয় এবং এক পর্যায় সংঘর্ষ বাধে। এসময় আমার ভাসুর হাবিবুল্লা শেখ তাদের থামানোর চেষ্টা করে।তখন ইউনুস শেখের লোকজন এসে পেছন থেকে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে আঘাত করে।এতে হাবিবুল্লার মাথা ফেটে যায় ও মাটিতে নুইয়ে পড়ে।

নিহত মন্টু শেখের পূত্রবধু কারিমা বেগম (২৫) বলেন,আমি ঘুম থেকে উঠে চিৎকার শুনতে পাই এবং এগিয়ে দেখি বাবলু শেখের ভাই আবুল বাশার সহ তার লোকজন আমার শ্বশুরকে বেধড়ক মারপিট করতে থাকে।আমি ছুটে গিয়ে তাকে বাচানোর চেষ্টা করলে আমাকেও লাঠি দিয়ে আঘাত করে।
তিনি আরো বলেন,এই মারামারি আমার শ্বশুর মন্টু শেখের সাথে না।মূলত এই মারামারি ইউনুস শেখ ও বাবলু শেখের মধ্যে।আমার শ্বশুর যায় তাদের থামানোর জন্য কিন্তু বাবলু শেখ আমার শ্বশুরকে উদ্দেশ্য মূলক ভাবে গালিগালাজ করতে থাকে।প্রতিবাদ করলে আমার শ্বশুরকে তারা লাঠিপেটা করে।আমি এই ঘটনার সুষ্টু বিচার দাবি করছি।

প্রতিবেশী রফিকুল ইসলাম বলেন, যে দুই জন ব্যাক্তি মারা গেলেন আজকের ঘটনায় তারা কেউই সংশ্লিষ্ট নয়। এটি মূলত পূর্ব শত্রুতার রেশমাত্র। বাবলু ও মন্টুর শেখের মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধিতা চলছে এবং গ্রাম্য পর্যায় মিমাংশার চেষ্টা করলে দু,পক্ষের অনড় অবস্থানে থাকায় ব্যার্থ হয়েছেন।

এঘটনার সত্যতা স্বীকার করে টুঙ্গিপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এমামুল কবির বলেন,দুই পক্ষেই মামলা হয়েছে। দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।।