খুলনা সিটিতে মেয়র পদে লড়তে চান না তালুকদার আব্দুল খালেক

0
559

এম জে ফরাজী, খুলনাটাইমস:
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ভোটগ্রহণ আগামী ১৫ মে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন শনিবার এ সিটির নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেছে। নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসলেও এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত হয়নি। মেয়র প্রার্থী নিয়ে খুলনাবাসীরও আগ্রহের কমতি নেই। ঘুরে ফিরে আলোচনায় সাবেক মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এর নাম। কিন্তু সে সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেছেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশনে আর মেয়র পদে লড়তে চান না।
গতকাল শনিবার রাতে কেসিসি নির্বাচন নিয়ে সাংবাদিকরা তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেখান থেকে তিনি পরাজিত হয়েছেন সেখানে আর ফিরে আসতে চান না। মেয়র পদে পরাজিত হওয়ার পর তিনি আবারও রামপাল-মোংলা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন, জীবনের বাকি সময়েও তিনি ওই আসনের প্রতিনিধিত্ব করতে চান।
দলের প্রার্থী চূড়ান্তের বিষয়ে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল। এখানে প্রার্থী চূড়ান্ত করতে সময় লাগবে এটাই স্বাভাবিক। খুব শিগগিরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেয়র পদে যোগ্য প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন।
দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সম্পর্কে তিনি বলেন, দলের কাছে মনোনয়ন চাওয়া স্বাভাবিক ব্যাপার। অনেক প্রার্থীর মধ্যে একজন প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে। দল যাকে মনোনয়ন দেবে তার পক্ষেই ঐক্যবদ্ধভাবে সবাই কাজ করবেন। এদের মধ্য থেকে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার কোন সুযোগ নেই।
প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেন, এখান থেকে আমি আর নির্বাচন করতে চাই না। দলের সিদ্ধানানুযায়ী মেয়র প্রার্থীকে বিজয়ী করতে জোড়ালো ভাবে কাজ করে যাবো।
কাউন্সিলর প্রার্থীর বিষয়ে তিনি বলেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ৩১টি ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের প্রত্যেকটি থেকে ৩ জন করে মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম কেন্দ্রে পাঠানো হবে। সেখান থেকে দলের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় প্রত্যেক ওয়ার্ডে একক প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে। কাউন্সিলর পদেও কেউ দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে নির্বাচন করতে পারবেন না। সেক্ষেত্রে বিদ্রোহী প্রার্থী হলে তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হবে।
উল্লেখ্য, খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মেয়র পদে আলোচনায় রয়েছেন বেশ কযেকজন প্রার্থী। এরা হলেন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান, সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. সাইফুল ইসলাম, মহানগর যুবলীগর আহŸায়ক সরদার আনিসুর রহমান পপলু, দৌলতপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ সৈয়দ আলী।