খুলনা-যশোরসহ ২৬টি পাটকলে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি আসছে

0
569

এম জে ফরাজী, খুলনাটাইমস:
বিজেএমসি নিয়ন্ত্রিত সারাদেশের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলে ১১ দফা বাস্তবায়নের দাবীতে ব্যাপক আন্দোলন কর্মসূচি নিয়ে রাজপথে নামার সংকেত দিয়েছে ঢাকায় অবস্থানরত শ্রমিক নেতারা। রবিবার ঢাকায় খুলনাসহ দেশের ২৬টি পাটকলের সিবিএ-নন সিবিএ নেতারা কয়েক দফা বৈঠক করার পর মাসব্যাপি নতুন মাত্রায় আন্দালন নামার কর্মসুচি নেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে।
আন্দালন কর্মসূচির মধ্যে হরতাল, অবরোধ, ঘেরাও, স্মারকলিপি পেশ, ভুখা মিছিলসহ একাধিক কর্মসূচি রয়েছে বলে ঢাকা থেকে শ্রমিক নেতারা জানিয়েছেন। গত শনিবার খুলনাঞ্চলের ৯ পাটকলের সিবিএ-নন সিবিএ নেতারা ঢাকায় পৌছান। রবিবার সকাল ১১টায় বিজেএমসির সভা কক্ষে ঢাকা, নরসিংদি, চট্রগ্রাম, রাজশাহীর পাটকলের শ্রমিক নেতাদের সাথে দীর্ঘ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ পরিষদের আহবায়ক খুলনার প্লাটিনাম জুট মিলস এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের সভাপতি সরদার মোতাহার উদ্দিন। বক্তৃতা করেন পরিষদের কার্যকরী আহŸায়ক মোঃ সোহরাব হোসেন, পরিষদের সদস্য সচিব ও হাফিজ জুট মিলস শ্রমিক-কর্মচারী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাহবুবুল আলম, ঢাকা আঞ্চলিক কমিটির আহবায়ক ইউ,এম.সি জুট মিল সিবিএর সভাপতি মোঃ আনিসুর রহমান, চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির আহবায়ক আমিন জুট মিল সিবিএর সভাপতি আলহাজ্ব মহব্বত আলী খাঁন, খুলনা আঞ্চলিক কমিটির আহবায়ক আলিম জুট মিলের সিবিএর সাধারণ সম্পাদক মোঃ আঃ হামিদ সরদার, বাংলাদেশ জুট মিলস সিবিএর সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকতারুজ্জামান, হাফিজ জুট মিলের সাধারণ সম্পাদক মোঃ দিদারুল আলম চৌধুরী, স্টার জুট মিলের সিবিএর সাধারণ সম্পাদক মোঃ আঃ মান্নান। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্লাটিনাম জুট মিলের সাবেক সভাপতি কাওসার আলী মৃধা, সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, ক্রিসেন্টর সাবেক সভাপতিমোঃ দ্বীন ইসলাম, স্টার জুট মিলের বেল্লাল মল্লিক, জেজেআই মিলের হারুন অর রশিদ মল্লিক, খালিশপুর জুট মিলের সিবিএর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মিজানুর রহমান মানিক, সাবেক সিবিএর সাধারণ সম্পাদক সরদার আলী আহমেদ, আবু হানিফসহ সিবিএ-নন সিবিএর অন্যান্য নের্তৃবৃন্দ। বৈঠকটি বেলা সাড়ে তিনটায় মুলতবি করা হয়।
আজ সোমবার একমাসের টানা আন্দোলন কর্মসূচির চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহন এবং আগামী কাল (৯ জানুয়ারী) ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অন্দোলন কর্মসুচি ঘোষনা হতে পারে বলে জানান পরিষদের কার্যকারী আহবায়ক মোঃ সোহরাব হোসেন।
এদিকে খুলনাঞ্চলের শ্রমিক নেতারা ঢাকায় অবস্থান করলেও মিলগুলিতে গেট সভা ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্লাটিনাম ও খালিশপুর জুট মিলে লঙ্গরখানায় শ্রমিক ও তাদের পরিবারকে খিচুড়ি (খাবার) দিয়েছে শ্রমিকরা। সাধারণ শ্রমিকরা বাড়িতে বাড়িতে যেয়ে চাল, ডাল, পিয়াঁজ, টাকা সাহয্য চেয়ে সড়ক ও রেললাইনের উপর রান্না করে খাবারের ব্যবস্থা করছেন।
ঢাকা থেকে সোহরাব হোসেন মুঠো ফোনে জানান, দেশের ২৬ টি পাকলের শ্রমিক নেতারা বিজেএমসির সভাকক্ষে সমবতে হয়েছেন। মজুরী কমিশন, বকেয়া মুজরী, বন্ধ মিল কল কারখানাকে চালু, কর্মচারীদের বেতনসহ ১১ দফা দাবীতে মিল গুলি বন্ধ রেখে আন্দোলন করছে। বিজেএমসি কর্তপক্ষ এসব বিষয়ে অবগত হওয়ার পরেও আন্দোলন নিরসনের কোন উদ্যোগ গ্রহন করেনি। আজ সোমবার আবারো বিজেএমসি সভা কক্ষে বৈঠক করার পর সংবাদ সম্মেলন করে ধারাবাহিক আন্দালোন কর্মসূচির ঘোষণা করতে পারেন বলে সোহরাব হোসেন জানান।