খুলনা বিভাগীয় ট্যাংকলরী মালিক শ্রমিকদের তিন ঘন্টা কর্মবিরতি

0
469

খুলনা টাইমস প্রতিবেদক:
তিন দফা দাবিতে শুরু হওয়া খুলনা বিভাগীয় ট্যাংকলরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করা হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া এ কর্মসূচি চলে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। কর্মবিরতি চলাকালে খুলনার পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা ডিপো থেকে সকল প্রকার জ্বালানী তেল উত্তোলন, পরিবহণ বন্ধ ছিলো। কর্মবিরতি প্রত্যাহারের পর পুনরায় জ্বালানী তেল উত্তোলন ও পরিবহণ কাজ শুরু হয়। তিন দফা দাবির মধ্যে রয়েছে, রাস্তা-ঘাট সংস্কার করে চলাচল উপযোগী করা, ট্যাংকরির সামনে থাকা বাম্পার অপসরণ না করা ও হাইওয়ে পুলিশের হয়রানী বন্ধ করা।
এদিকে কর্মবিরতি চলাকালে খালিশপুর এলাকায় খুলনা বিভাগীয় ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের চত্ত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। খুলনা বিভাগীয় ট্যাংকলরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. নূর ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, খুলনা বিভাগীয় জ্বালানী তেল পরিবেশক সমিতির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল গফ্ফার বিশ্বাস, বিভাগীয় ট্যাংকলরি ওনার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ সাজ্জাদুল করিম কাবুল, সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরহাদ হোসেন, পদ্মা-মেঘনা-যমুনা ট্যাংকলরি শ্রমিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি কাউন্সিলর সুলতাম মাহমুদ পিন্টু, শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আলী আজিম প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, খুলনা বিভাগ ও বৃহত্তর ফরিদপুরসহ ৫ জেলার রাস্তাঘাটের বেহাল অবস্থা। ভাঙা-চোরা রাস্তা দিয়ে চলাচল দায়। এ অবস্থায় জ্বালানী তেল পরিবহণ করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। রাস্তার এমন অবস্থা দেখেও কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। ফলে ঝুঁকি নিয়ে এসব সড়কে চলাচল করতে হচ্ছে। এছাড়া ট্যাংকলরির বাম্পার অপসারণের নির্দেশনা বন্ধ করতে হবে। বক্তারা বলেন, হাইওয়ে পুলিশের হয়রানির কারণে চালকদের বিপাকে পড়তে হয়। এটি বন্ধ করতে হবে। অবিলম্বে এসব দাবি মেনে নেয়া না হলে ধর্মঘটসহ কঠোর কর্মসূচি গ্রহণের হুশিয়ারি দেন বক্তারা।