খুলনা প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদকের সাথে দূর্ব্যবহার তেরখাদা ইউএনও’র

0
437
বটিয়াঘাটা ইউএনও লিটন আলী

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনাটাইমস:

খুলনার তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিটন আলীর ফোনে অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করলেন উপজেলার বিআরবি আজগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশুর সাথে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকতার ফোনালাপ স্কুল কমিটির সভাপতির প্রতি তুচ্ছ তাচ্ছিল্ল, অর্ডার করা, মানহানিকর ও হুমুকি দেয়ার সামিল। ঘটনাটি সাংবাদিক, রাজনৈতিক ও প্রশাসনসহ বিভিন্ন মহলে প্রচার হওয়ার পর চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
উপজেলার বিআরবি আজগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একটি বিষয়কে কেন্দ্র করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস থেকে স্কুল কমিটির সভাপতির কাছে ফোন করা হয়। ফোনালাপের এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে স্যার না বলে ভাই বলায় মল্লিক সুধাংশুর সাথে তুচ্ছতাচ্ছিল আচরণ করেন। তাকে অর্ডার করা, মানহানিকর এবং হুমকি দেয়ার মতো ঔদাত্বপূর্ণ বাক্যও ব্যয় করেন।
খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মল্লিক সুধাংশু এ ব্যাপারে জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমার সাথে ফোনে যে আচরণ করছে তা মোটেই শোভনীয় নয়। একটি স্কুলের সভাপতির সাথে একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কোনভাবেই এ ধরণের আচরণ করতে পারেননা। আমি এমন অশ্লীল আচরণের বিষয়টি জেলা প্রশাসাককে জানিয়েছি। তাছাড়া খুলনা প্রেসক্লাব, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নসহ আমার সহকর্মীদেরও জানানো হয়েছে।
খুলনার জেলা প্রশাসক মো. আমিন উল আহসান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অশ্লীল আচরণ সম্পর্কিত প্রশ্নের জবাবে বলেন, আসলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা না বুঝে একটি ভুল করে বসেছে। বিষয়টি আমি দেখছি।