খুলনা টিভি রির্পোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সভায় বক্তরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতা গ্রহণের পর হতে অবাধ তথ্য প্রবাহের ব্যবস্থা করেছেন

0
337

বিজ্ঞপ্তি : খুলনা টিভি রির্পোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সভায় অতিথিরা বলেছেন, দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতা গ্রহণের পর হতে অবাধ তথ্য প্রবাহের ব্যবস্থা করেছেন। সাংবাদিকদের যথাযথ মূল্যায়নসহ তাদের ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন ও অসুস্থ্য ভাতাসহ নানাবিধ সুযোগ সুবিধা দিয়েছেন। যা অতীতে কোন সরকারই করেনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথ্য অধিকার আইন প্রনয়ন করে সাংবাদিকদের মুক্ত হস্তে লিখার সুযোগ করে দিয়েছেন। গণমাধ্যম আজ অবাধ ভাবে লিখে চলেছে। তিনি আরো বলেন, সাংবাদিকরা দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, সংবিধান ও জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠায় বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে দেশ ও জনগণের পাশে দাড়িয়েছে। সাংবাদিকদের এই বস্তু নিষ্ঠ লিখনীই দেশকে উন্নত বিশ্বের পাশে দাড়ানোর বিশেষ ভ‚মিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন।
গতকাল রবিবার বিকাল ৫টায় ওয়েষ্টার্ণ ইনন হোটেলে খুলনা টিভি রির্পোর্টার্স ইউনিটির ইফতার মাহফিলে এসব কথা বলেন। খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক রকিব উদ্দিন পান্নুর পরিচালনায় অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান, কেন্দ্রিয় নেতা এস এম কামাল হোসেন, এনএস আই এর যুগ্ম পরিচালক মো. মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবু সাঈদ আল মঞ্জুর, বিভাগীয় পাসপোর্ট পরিচালক আবু সাঈদ, টিভি রির্পোর্টার্স ইউনিটির সহ সভাপতি মল্লিক সুধাংশু, সুনীল দাস, আমিরুল ইসলাম, লিয়াকত হোসেন, মহেন্দ্রনাথ সেন, মামুন রেজা, বাবুল আক্তার, মকবুল হোসেন মিন্টু, ফারুক আহমেদ, তরিকুল ইসলাম, কনক রহমান, আলহাজ্ব আবু তৈয়ব, শামীমুজ্জামান, ফারজানা ববি, অভিজিৎ পাল, প্রবীর বিশ্বাস, খুলনা টিভি ক্যামেরা জার্নালাস্টি এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি নেয়ামুল হোসেন কচি, সাধারণ সম্পাদক হাসান আল মামুন সহ টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটি এবং ক্যামেরা জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

এর আগে খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির নির্বাহী কমিটি ও সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আগামী ২৯ জুন ইউনিটির নির্বাচনের সিদ্ধান্ত হয়। পরে দেশ ও জাতির কল্যানে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।