খুলনা জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত : নগরীতে গত মাসে দুটি ধর্ষন সহ ২১৫ মামলা

0
436

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা আজ রবিবার (৮এপ্রিল) সকালে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। খুলনা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আমিন উল আহসান এতে সভাপতিত্ব করেন।

সভায় খুলনার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিস্তারিত আলোচনা হয়। সভাপতি বলেন,বর্তমানে সড়ক দূর্ঘটনা মারাত্মক আকার ধারন করেছে। সড়ক দূর্ঘটনা প্রতিরোধে মহানগরীতে থ্রি হুইলার গাড়ীর চালকদের লাইসেন্স, গাড়ীর রেজিস্ট্রশনসহ অন্যান্য কাগজপত্র কঠোরভাবে পরীক্ষা ও যাচাই-বাছাই করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়। একই সাথে থ্রি হুইলার ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহনকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ এবং অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা যাবেনা মর্মে সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। শহরের মধ্যে দিনের বেলায় বাস ট্রাক যাতে চলাচল করতে না পারে সেজন্য আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য অনুরোধ করেন। পুলিশ সুপার নিজামুল হক মোল্লা সভাকে জানান, আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে পুলিশ বাহিনী নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। মোটরসাইকেলে তিনজন আরোহী নিয়ে চলাচল করতে পারবে না। প্রতিদিন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে।

জেলা প্রশাসক আমিন-উল-আহসান জানান, মাদক সেবন ও গ্রহণের বিষয়ে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে হবে। মাদকের পাশাপাশি ইয়াবা ও গাজাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকে অনেকে আসক্ত হয়ে পড়ছে। মাদক ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনতে তাদের তালিকা অনুযায়ী আইনের কঠোর প্রয়োগ করতে হবে। মাদক সম্পর্কে পুলিশ সুপার নিজামুল হক মোল্লা সভাকে জানান, মাদকের বিষয়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অবস্থান জিরো টরারেন্স। সভাপতি বলেন, মাদকবিরোধী প্রচার-প্রচারণাকে আরো জোরদার করতে হবে। এব্যাপারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত রাখতে সংশ্লিষ্টকে অনুরোধ করেন।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, আসন্ন রোজায় রাস্তাঘাট পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতে সিটি কর্পোরেশনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে অনুরোধ করেন। আসন্ন সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশনারের নির্দেশ অনুযায়ী তিনি নগরীতে ব্যানার ও প্যানা অপসারনের জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করেন এবং এ বিষয়ে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

সভায় সিভিল সার্জন, পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, মুক্তিযোদ্ধা, কেএমপি, বিজিবি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।

সভায় আইনশৃঙ্খলা প্রতিবেদনে জানানো হয়, খুলনা জেলার নয়টি উপজেলায় গত মার্চ-১৮ মাসে চুরি ২টি,খুন ৩টি,, ধর্ষণ ৩টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ১৭টি, মাদকদ্রব্য ৩৯টি এবং অন্যান্য ৭৯টি সহ মোট ১৪৩টি মামলা দায়ের হয়েছে। গত ফেব্রুয়ারি-১৮ মাসে এ সংখ্যা ছিল ১৬০টি।

মহানগরীর আটটি থানায় মার্চ-১৮ মাসে রাহাজানি ১টি, চুরি ৭টি, অস্ত্র আইনে ১টি,দ্রুত বিচার ১টি, ধর্ষণ ২টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ১৩টি ও মাদকদ্রব্য ১৪৬টি এবং অন্যান্য আইনে ৪৪টি সহ মোট ২১৫টি মামলা দায়ের হয়েছে। গত ফেব্রুয়ারি-১৮ মাসে এ সংখ্যা ছিল ১৭৪টি।