খুলনা জুট স্পিনার্সের শ্রমিকরা পাওনা আদায়ে কঠোর কর্মসুচি নিয়ে মাঠে নামছে

0
434

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা) প্রতিনিধি:
শিরোমণি শিল্পাঞ্চালের বন্ধকৃত ব্যাক্তিমালিকানা জুট স্পিনার্স মিলের সমস্যা সমাধানের লক্ষে কয়েক দফা খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ত্রি-পক্ষিয় বৈঠক, দফায় দফায় বিভিন্ন আন্দোলন কর্মসুচির পরও শ্রমিক-কর্মচারীদের দাবী সমুহ বাস্তবায়ন না হওয়ায় নতুন কর্মসুৃচি নিয়ে রাজপথে আন্দোলনের কর্মসুচি গ্রহনের লক্ষে সোমবার মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হবে ।
মিলটির ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ সুত্রে জানাগেছে, দীর্ঘ প্রায় ২ বছর যাবত মিলটি বন্ধ থাকায় বন্ধকৃত মিলের শ্রমিকদের মানবেতন জীবন যাপনের মধ্যে দিয়ে গত ১৯ মে থেকে মিলের উৎপাদন প্রক্রিয়া চালু , শ্রমিকদের বকেয়া ঈদ উৎসব ভাতা , মিলের বন্ধ তারিখ থেকে অদ্যবদি ৬০ সপ্তাহের সকল বকেয়া মুজুরী পরিশোধ, কর্মচারী-কর্মকর্তাদের ২৫ মাসের বকেয়া পরিশোধ, শ্রমিকদের ঈদের অতিরিক্ত নিয়ম বহিরভ’ত ৫২দিন বন্ধের মুজুরী, শ্রমিকদের মুজুরী কমিশনের এরিয়া, বকেয়া ইনক্রিমেন্টের এরিয়া সহ চলতি ইনক্রিমেন্টের মজুরী পরিশোধের দাবীতে রাজপথে আন্দোলন কর্মসুচি পালন করে আসছে শ্রমিক ঐক্য পরিষদ(ননসিবিএ)। দীর্ঘ আন্দোলন এবং শ্রমিকদের কথা বিবেচনায় সমস্যা সমাধানের লক্ষে গত ২০১৭ সালের ১৮ জুন খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মালিক পক্ষ, পাটসুতা বস্ত্রকল শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ, মিলের সিবিএ ও ননসিবিএ,র মধ্যে ত্রি-পক্ষিয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে মিলের সিবিএ-ননসিবিএ দাবী সমুহের সন্তোষজনক সমাধান হওয়ায় কর্মসুচি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। কিন্তু আন্দোলন কর্মসুচি প্রত্যাহার করা হলেও দীর্ঘ ৮ মাস অতিবাহিত হলেও দাবী সমুহ বাস্তবায়ন করা হয়নি। বন্ধকৃত মিলটিতে স্থায়ী এবং অস্থায়ী শ্রমিক মিলে প্রায় ১৬শত শ্রমিক রয়েছে যাদের বকেয়া পাওনা রয়েছে প্রায় ৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে শ্রমিকদের ৬০ সপ্তাহের মজুরী বাবদ ৪ কোটি ৬০ লক্ষ, কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের ২৫ মাসের ১কোটি ১ লক্ষ ৫০ হাজার, মজুরী কমিশনের এরিয়া বাবদ ৩৭ লক্ষ, ঈদ বোনাস বাবদ ২৯ লক্ষ, ইনক্রিমেন্ট এরিয়ার ১০ লক্ষ এবং পদত্যাগকৃত শ্রমিক-কর্মচারীদের গ্রাইচুটির ৭০ লক্ষ টাকা বকেয়া পাওনা রয়েছে বলে ইউনিয়ন সুত্র জানিয়েছেন। দীর্ঘদিন বিরতির পর এবারে মিলের সিবিএ-ননসিবিএ এক সাথে আন্দোলন কর্মসুচি নিয়ে মাঠে নেমেছেন। এ লক্ষে সিবিএ এবং ননসিবিএ সমন্বয়ে ৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। দাবী বাস্তবায়নে নতুন কর্মসুচির রুপরেখা প্রস্তুত করতে আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় শিরোমণি আটরা গিলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের অডিটরিয়ামে সিবিএ এবং ননসিবিএর উদ্যোগে বিভিন্ন রাজনৈতিক.সামাজিক,জনপ্রতিনিধি. পেশাজীবী ও ট্রেড ইউনিয়নের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হবে। মতবিনিময় সভা শেষে ঘোষনা হতে পারে কঠোর কর্মসুচি। উল্লেখ্য মিলটির মালিক মো. সামছুজ্জোহা কোন নোটিশ ছাড়াই গত ২৫ আগস্ট ২০১৬ থেকে মিলটি অত্যান্ত কৌশলে উৎপাদন প্রক্রিয়া বন্ধ রেখেছেন।