খুলনা গ্রাম পুলিশের পোশাক সরবরাহের দু’কোটি টাকার দরপত্র জমা দিতে বাধা

0
514

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনাটাইমস:
খুলনায় গ্রাম পুলিশের (দফাদার মহাল্লাদার) পোশাক ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি সরবরাহের প্রায় ২ কোটি টাকার কাজের দরপত্র জমা দিতে পারেনি সাধারণ ঠিকাদাররা। কারণ বৃহস্পতিবার দরপত্র জমার নির্ধারিত স্থান বিভাগীয় কমিশনার ও কেসিসি কার্যালয়ে পাহারা বসায় খুলনা মহানগর যুবলীগের নেতাকর্মীরা। এসময় তারা সাধারণ ঠিকাদারসহ জনসাধারণকে প্রবেশদ্বারে জেরা করে, ভেতরে প্রবেশ করতে বাধা দেয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও একাধীক সূত্র জানিয়েছে, খুলনা মহানগর যুবলীগের নেতা রানা পারভেজ সোহেল ও কাজী তালাত হোসেন কাউট এর নেতৃত্বে তাদের অনুসারীরা এই টেন্ডার কাজের সিন্ডিকেট করে। ’শ’ অদ্যক্ষর নামের দক্ষিবঙ্গের এক প্রভাবশালী নেতা উক্ত দরপত্রটির কাজ পাইয়ে দেবার জন্য নগর যুবলীগ ওই নেতারা এই পাহারা বসায়। এসময় সাধারণ ঠিকাদাররা দরপত্র জমা দিতে গেলে তাদের বাধা দেয়। এমনকি যুবলীগের একাংশ দরপত্র জমা দিতে গেলে উভয় গ্রæপের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। তবে এরা কেউ্ই দরপত্র জমা দিতে পারেনি বলে সূত্র জানিয়েছে।

আরও জানা যায়, গত ৭ ফেব্রæয়ারি এই কাজের দরপত্র আহবান করা হয়। ক্রয়ের শেষ তারিখ ছিল ২৮ ফেব্রæয়ারি। সর্বমোট ১০টি সিডিউল বিক্রি হয়েছে। দরপত্র জমার শেষ দিন ছিল ১ মার্চ খুলনা সিটি কর্পোরেশন ও বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখায়।

এব্যাপারে খুলনা বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার পরিচালক হোসেন আলী খন্দকার দরপত্র বাধা দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন।

যুবলীগ নেতা কাজী তালাত হোসেন কাউট জানান, কতিপয় নেতা খুলনা যুবলীগকে ব্যবহার করে এই দরপত্র নিয়ন্ত্রণ করছে। এই কাজের সাথে তার কোন সম্পৃক্ততা নেই।