খুলনায় ১২শ’ টাকার জন্য কাস্টমস কর্মকর্তাকে হত্যা

0
571

নিজস্ব প্রতিবেদক : খুলনায় অবসরপ্রাপ্ত কাস্টমস সুপারিনটেনডেন্ট মোঃ মোশাররফ হোসেন (৮০) এর হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে তার পরিবার। এ ঘটনার মূল আসামী সোনাডাঙ্গা থানাধীন ছোট বয়রা পূজাখোলা (অবঃ মেজর নজরুল ইসলামের বাড়ী)’র ভাড়াটিয়া মোঃ হাসান শেখ (২২) কে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছেন তারা। আসামী আদালতে এ ঘটনায় ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেছেন। খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (সদর ও পিআর) শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, গত ৩০ জুন সকাল ৬টার দিকে ১৫২/২ ছোট বয়রা মেইন রোডের বাসিন্দা মোঃ মোশাররফ হোসেন (৮০) এর মৃত্যু হয়। নিহত ব্যক্তি বয়স্ক লোক হওয়ায় উক্ত মৃত্যুকে স্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা হিসেবে মনে করে ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক গ্রামের বাড়ী সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার দরগাপাড়া গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়।
অতঃপর নিহতের জামাই ও মামলার বাদী তার শ্বশুরের খুলনার ঠিকানা সাং-১৫২/২, ছোট বয়রা মেইন রোড, পূজাখোলা, সোনাডাঙ্গা মডেল থানা, খুলনায় ফিরে এসে তার শ্বশুরের ঘর ভাল ভাবে লক্ষ্য করলে ঘরের অবস্থা দেখে বাদীর সন্দেহ হয়। বাদী পার্শ্ববর্তী বাড়ীর সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ দেখে আসামীকে সন্দেহ করে। সিসি ক্যামেরায় ফুটেজ পর্যালোচনাকালে উক্ত আসামী বাদীর শ্বশুরের মৃত্যুকালীন ৩০ জুন সকাল অনুমান ৫.২৫ টা থেকে ৬টার মধ্যে আসামী মোঃ হাসান শেখ ঘটনাস্থলে অবস্থান করেছিল।পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সময় আটক করে।
এ ঘটনায় আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে স্বীকার করে যে, চুরি করার জন্য উক্ত ৪ তলা ভবনের ২য় তলায় নিহত মোঃ মোশাররফ হোসেন এর মেইন দরজা খোলা পেয়ে ঢুকে পড়ে। বাসার মধ্যে রান্না ঘরের মিটসেফের উপর থেকে ১২ শত টাকা পেয়ে মোঃ মোশাররফ হোসেন উক্ত ঘটনা টের পায়। তিনি কে কে বলে চিৎকার করেন। তখন তার গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে আসামী জানায়। অতঃপর নিহতের পরিবার এজাহারসহ উক্ত আসামীকে সোনাডাঙ্গা মডেল থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।
তিনি আরও জানান, উক্ত ঘটনার বিষয়ে সোনাডাঙ্গা মডেল থানার মামলা নং-১৪, তারিখ-০৯/০৭/১৯ইং ধারা-৪৫৪/৩৮০/৩০২ পেনাল কোড রুজু হয়। আসামী বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃকাঃবিঃ ১৬৪ ধারা মতে জবানবন্দি প্রদান করে। মামলাটির জোর তদন্ত অব্যাহত আছে।