খুলনায় সাবেক স্ত্রীকে অপহরণকালীন স্বামী সহ আটক ২

0
376

ফুলবাড়ীগেট (খুলনা) প্রতিনিধি:
সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্য মোঃ কবির সরদার এবং তার স্ত্রীকে মারপিট কর মেয়েকে এবং তার দেড় মাস বয়েসি শিশুকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা তাড়া করে অপহরণকারী এবং তাদের ব্যবহৃত মাইক্রোবাস আটক করেছে। এই ঘটনায় সাবেক স্বামী এবং মাইক্রো ড্রাইভারকে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা। এ সময় উত্তেজিত জনতা এই ঘটনায় ব্যবহৃত মাইক্রো ঢাকা মেট্রো চ-৫৬১২৫৫ ভাংচুর করে।
প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানাগেছে, শনিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় নগরীর খানজাহান আলী থানাধীন ফুলবাড়ী কপোতাক্ষ এলাকার অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর সদস্য মোঃ কবির সরদারের বাড়ীর ৫/৬ জন যুবক তাকে এবং তার স্ত্রী বেবীকে মারপিট করে বুকে খেলনা পিস্তল ঠেকিয়ে তাদের কন্যা সাবিয়া সুলতানা মৌমিতা (২০) এর্বং দেড় মাসের শিশু পুত্রকে তার সাবেক স্বামী দৌলতপুর থানাধীন মধ্যডাঙ্গা গাইকুড় এলাকার মোঃ নিয়ামতের পুত্র মোঃ শরিফুল ইসলাম শাওন(২৫) অপহরণ করে কালো গøাসের একটি মাইক্রোতে করে তুলে নিয়ে যায়। এ সময় তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা মটরসাইকেল নিয়ে তাড়া করে দৌলতপুর থানাধীন মহেশ^রপাশা তেতুলতলা এলাকা থেকে তাদের ব্যবহৃত গাড়ী সহ কতিথ সাংবাদিক পরিচয়দান কারী শরিফুল ইসলাম ওরফে শাওন ও মাইক্রো ড্রাইভারকে আটক করেন। পরে স্থানীয় জনতা মাইক্রোটি ভাংচুর করে তাদেকে পুলিশে তুলে দেন।
ঘটনার পর খানজাহান আলী থানার এস আই রোকনুজ্জামান ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে তাদের তাদের ফেলে রেখে যাওয়া একটি খেলনা পিস্তল জব্দ করে। সাবিয়ার পিতা অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর সদস্য মোঃ কবির সরদার বলেন, দু’বছর আগে আমার মেয়েকে ফুসলিয়ে প্রেমের ফাদে ফেলে বিবাহ করে শরিফুল আমরা মেনে নিলে ও পরে তার আচা আচার এবং ব্যবহারে আমার মেয়ে তাকে গত দুই মাস আগে ডির্ফোস দিয়ে আমার বাসায় চলে আসে। শরিফুল সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে প্রকাশ্যে দিনের বেলায় আমাদের মারপিট করে আমাদের বুকে খেলনা পিস্তল ঠেকিয়ে আমার মেয়েকে অপহরণ করে।
এব্যাপারে খানজাহান আলী থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ লিয়াকত হোসেন জানান, অপহণের এমন একটি ঘটনা শুনেছি যেহেতু দৌলতপুর থানায় এলাকায় তারা আটক হয়েছে আর ভিকটিমের বাড়ী খানজাহান আলী থানা এলাকায় সেহেতু মামলা এই থানাতেই হবে। তাদেরকে দৌলতপুর থানা থেকে আনা হচ্ছে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত ব্যবহৃত গাড়ী এবং আকটকৃতরা দৌলতপুর থানায় ছিলো।