খুলনায় সরকারি স্কুলে ভর্তি পরীক্ষার সংশোধিত ফলে ১৩৩ শিক্ষার্থী বাদ : অভিভাবকদের বিক্ষোভ

0
1632

খুলনা টাইমস প্রতিবেদক :
খুলনার সাতটি সরকারি স্কুলে ভর্তি পরীক্ষার অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদে আন্দোলনে নেমেছেন অভিভাবকরা। প্রথম দফায় ঘোষিত ফলাফল পুনর্বহাল এবং কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে ‘অনিয়ম-দুর্নীতি’ ও ‘ঘুষ বাণিজ্যের’ অভিযোগ এনে জেলা প্রশাসককে দায়ী করেছেন বাদপড়া শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা। এ সময় তারা ভর্তি কমিটির প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, অবিলম্বে প্রথম দফায় ঘোষিত ফলাফল পুনর্বহাল করুন, না হলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। স্থগিত ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে উত্তীর্ণ কোমলমতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা শনিবার বিকালে খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেন।
সংবাদ সম্মেলনে অভিভাবকরা জানায়, ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে প্রকাশ করা নতুন ফলাফলে খুলনা জিলা স্কুল ও ইকবালনগর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে ১৩৩ শিশু শিক্ষার্থীকে ভর্তির সুযোগ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। সেখানে নতুন ১৩৩ শিক্ষার্থীকে কৃতকার্য দেখানো হয়েছে।
তারা জানান, এতগুলো স্কুলের ফলাফল গরমিল প্রমাণ করে ভর্তি পরীক্ষায় দুর্নীতি হয়েছে। তারা তদন্তপূর্বক দুর্নীতিতে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন। একই সঙ্গে পূর্বে ঘোষিত ফলাফল বহাল রাখার দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে রবিবার বেলা ১১টায় খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি, স্মারকলিপি প্রদানের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেওয়া খুলনা জিলা স্কুলের তৃতীয় শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে প্রথম ফলাফলে ৩৫তম স্থান করা মুশফিক শাহরিয়ারের মা শামীমা আক্তার বলেন, আমার ছেলে জিলা স্কুলের ডে শিফটের ভর্তি পরীক্ষায় ৩৫তম হয়। আমাদের ভর্তি ফরম দিয়েছে সেটি পূরণ করে জমা দিতে গিয়ে দেখি নোটিশ বোর্ডে অন্য রেজাল্ট দিয়েছে। ২১ তারিখের ফলাফলে আমার ছেলে উত্তীর্ণ হয়। আর ২৩ তারিখের ফলাফলে তার নামসহ ১-৫৬ পর্যন্ত বাতিল হয়ে গেছে।
তিনি আরো বলেন, আমাদের দাবি আগের রেজাল্ট বহাল থাকুক। সব স্কুলে ভর্তি হয়ে গেছে এসব বাচ্চাদের এখন কোথায় ভর্তি করবো। এ দুশ্চিন্তায় সময় কাটছে। সংবাদ সম্মেলনের আগে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা প্রেসক্লাবে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এ সময় অনেক শিক্ষার্থীকে কান্নায় ভেঙ্গে পড়তে দেখা যায়।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. আমিন-উল-আহসান বলেন, পরীক্ষার ফলাফল অনলাইনে আপলোড করার সময় ত্র“টি হয়েছে। এই কারণে সবগুলো স্কুলের ফলাফল পুনরায় সঠিকভাবে যাচাই করে সঠিক ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।