খুলনায় র‌্যাবের অভিযানে অস্ত্র ও গুলিসহ তিন ডাকাত আটক

0
553

নিজস্ব প্রতিবেদক : খুলনায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ তিন ডাকাতকে আটক করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব-৬)’র সদস্যরা। মঙ্গলবার দুপুরে রূপসা কাজীবাছা নদীর পশ্চিম পাড়ে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।
আটকরা হলেন কয়রা থানাধীন মটবাড়ী এলাকার মোঃ আবু তালেব গাজীর ছেলে মোঃ সিরাজুল গাজী (২২), সাতক্ষীরার শ্যামনগর থানাধীন দাতিনা খালী এলাকার আব্দুল গনি সানার ছেলে শাহা জামাল সানা (৩০) ও চন্ডিপুর এলাকার আবুল বাশার মোড়ল এর ছেলে নূরুজ্জামান মোড়ল (২৫)। এসময় তাদের কাছ থেকে ১টি বিদেশী বন্দুক, ১টি পাইপগান, ২টি রামদা ও ১১ রাউন্ড গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।
র‌্যাব সূত্র জানায়, আসামীরা নৌপথে ডাকাতি করার জন্য বটিয়াঘাটা থানাধীন মটখেয়াঘাট ফুলতলা ছোট বাজার থেকে ৫০০ গজ দক্ষিন পূর্ব কোনে রূপসা কাজীবাছা নদীর পশ্চিম পাড়ে অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে স্পেশাল সিপিসি কমান্ডার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: এনায়েত হোসেন মান্নান এর নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি চৌকস আভিযানিক দল অভিযান পরিচালনা করে। এসময় উল্লিখিত তিন ডাকাতে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক করা হয়।
র‌্যাব কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন মান্নান জানিয়েছেন, গ্রেফতারকৃত জলদস্যুদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা বিভিন্ন দস্যু বাহিনীতে থাকার কথা স্বীকার করেছে। এদের মধ্যে ডাকাত মোঃ সিরাজুল গাজী জানায়, সে রবিউল বাহিনী ও আনায়োরুল বাহিনীতে গত ৩ বছর কাজ করে বর্তমানে নিজের নতুন বাহিনী গঠন করে নামার উদ্যোগ গ্রহণ করে। ডাকাত মোঃ শাহা জামাল সানা জানায়, সে আনায়োরুল বাহিনীসহ বিভিন্ন বাহিনীতে কাজ করে। ডাকাত মোঃ নূরুজ্জামান জানায়, নানা ভাই বাহিনী ও আনোয়ারুল বাহিনীতে দীর্ঘদিন যাবত কাজ করে, বর্তমানে নতুন বাহিনীতে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেয়। তারা দীর্ঘদিন ধরে হাজার হাজার জেলে, বাওয়ালী, মৌয়ালী ও মৎস্য ব্যবসায়ীদের জিম্মি করে অত্যাচার নির্যাতন করে, ডাকাতি, লুন্ঠন, মুক্তিপণ আদায়সহ নানা অপরাধ সংঘটিত করে আসছে। তাদের বিরুদ্ধে বটিয়াঘাটা থানায় ডাকাতির প্রস্তুতি ও অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সুন্দরবনকে নিরাপদ করার জন্য র‌্যাব-৬ এর অভিযান অব্যাহত থাকবে।