খুলনায় রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রে মাদকের তালিকায় সাবেক ছাত্রলীগ নেতার নাম!

0
356

নিজস্ব প্রতিবেদক:
খুলনায় রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্রে হয়রানিমূলকভাবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাদক সংক্রান্ত প্রতিবেদনে কয়রা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিএম মেজবাহ উদ্দিন মাসুমের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন সাবেক এ ছাত্রলীগ নেতার পরিবার। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় খুলনা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে জিএম মেজবাহ উদ্দিন মাসুমের পিতা মাওলানা রাশেদুল ইসলাম এ অভিযোগ করেন। তিনি কয়রা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা ওলামালীগের সাবেক সহ-সভাপতি। এসময় তিনি অবিলম্বে তালিকা থেকে নাম কর্তণের দাবি জানান।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, স্বাধীনতার স্বপক্ষে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বিশ্বাসী হওয়ার পরও তাদের পরিবারটি ভিলেজ পলিটিক্সের চরম শিকার। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্রে সম্প্রতি প্রকাশিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাদক সংক্রান্ত প্রতিবেদনের বরাদ দিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় তার বড় ছেলে কয়রা উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিএম মেজবাহ উদ্দীন মাসুম এসেছে। প্রকৃতপক্ষে, তার ছেলে জীবনে কোনদিন মাদকের ধারে-কাছেও যায়নি। তাদের বিরুদ্ধে মামলা তো দুরের কথা একটি জিডিও নেই বলে জানান তিনি। তার জনপ্রিয়তা, সাংগঠনিকতা ও দলের মধ্যে গ্রহনযোগ্যতায় ইষ্মান্বিত হয়ে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ব্যক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করতে অর্থের বিনিময়ে মাদক সংক্রান্ত তালিকায় তার নাম অন্তর্ভুক্ত করিয়েছে বলে তাদের বিশ্বাস।
আমার ছেলে জিএম মেজবাহ উদ্দীন মাসুমকে জড়িয়ে মাদক সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক সংগঠন, আইনজীবি, সাংবাদিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসহ এলাকার সাধারণ মানুষ তীব্র ক্ষোভ, দুঃখ প্রকাশ ও নিন্দা জানিয়েছেন। তালিকা সংক্রান্ত বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্ত হলে ষড়যন্ত্রের রহস্য উম্মোচন হবে উল্লেখ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, র‌্যাব সদর দপ্তর, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরসহ উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের তদন্তপূর্বক মাদক বিক্রেতা তালিকা হতে তার ছেলে জিএম মেজবাহ উদ্দীন মাসুমের নাম কর্তনের দাবি জানিয়েছেন।