খুলনায় মাদকদ্রব্য’র পৃথক অভিযানে ৩১ লাখ টাকার ইয়াবাসহ আটক ২

0
387

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীতে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ‘ক’ সার্কেল পৃথক অভিযান চালিয়ে ৩১ লাখ টাকার ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে। আটককৃতরা হচেছ মোঃ মিলন মল্লিক (৩৬) ও সুরমা বেগম (২০)। আটক মহিলার স্বামী ইয়াবা ব্যবসার মূল হোতা ইজিবাইক চালক মোঃ সেলিম গাজী (২৮) অভিযানের টের পেয়ে পালিয়ে যান। সে দীর্ঘদিন ধরে ভাড়ায় চালিত ইজিবাইকের আড়ালে প্রশাসনের চোখ ফাকি দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ব্যবসা পরিচালনা করছিলেন। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৭ হাজার ৬১০ পিস ইয়াবা জব্দ করেন। গতকাল রোববার বিকেলে নগরীর মুন্সীপাড়া ও লবনচরা থানাধীন দারোগা লীজ নামক রায়পাড়া রোডস্থ এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করেন।
জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সূত্র জানায়, সংস্থার উপ-পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামানের তত্ত্বাবধায়নে ‘ক’ সার্কেলের পরিদর্শক হাওলাদার সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি টিম রোববার বিকেলে নগরীর মুন্সী পাড়া ৩য় গলিতে অভিযান চালান। এ সময় মোঃ মিলন মল্লিককে ১১০ পিস ইয়াবাসহ আটক করেন। আটক মিলন মল্লিক নগরীর ১নং কাস্টমঘাট এলাকার বাসিন্দা মৃত কদম আলী মল্লিকের পুত্র। এরপর তার স্বীকারোক্তিতে নগরীর লবনচরা থানাধীন দারোগা লীজ নামক রায়পাড়া রোডস্থ রাত সাড়ে ৮টায় মিন্না’র বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় ওই বাড়ির ভাড়াটিয়া ইজিবাইক চালন সেলিম গাজী ঘর তল্লাশি চালিয়ে ৭ হাজার ৫শ’ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ সময় সেলিম গাজীর স্ত্রী সুরমা বেগম কে আটক করেন। পলাতক সেলিম গাজী রূপসা উপজেলা রহিমনগর এলাকার বাসিন্দা মৃত মান্নান গাজীর পুত্র।
জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামান জানান, ইজিবাইক চালক মোঃ সেলিম গাজী ভাড়ায় চালিত ইজিবাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। এর আড়ালে প্রশাসনে চোখ ফাকি দিয়ে সে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ব্যবসা পরিচালনা করেন। সে মুলত ইয়াবা পাইকারি বিক্রেতা। তিনি বলেন, এর আগে আটক মিলনকে ইয়াবাসহ আটক করলে সে ইজিবাইক চালক মিলনের কাছ থেকে ইয়াবা নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় সাপ্লাই দিয়ে আসছিলেন।