খুলনায় মহিলা পুলিশ কনস্টবলের বিরুদ্ধে স্বামীর অভিযোগ

0
775

এস দেওয়ান:
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় কর্মরত মহিলা পুলিশ কনস্টবল রাজিয়া সুলতানা নারী কং নং-৬৩৮৮’র ভাড়া বাসায় গভীর রাতে এএসআই মাঃ মাহামুদুল হাসান কং নং- ৪৪৩০ অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকার অভিযোগ উঠেছে।

এই অভিযোগ করেছেন খোদ নারী পুলিশ কনস্টবেল রাজিয়ার স্বামী মাঃ রবিউল ইসলাম এর। তিনি ডেপুটি পুলিশ কমিশনার দক্ষিণ আব্দুল্লাহ আরেফ বরাবর লিখিত অভিযাগ দাখিল করেছেন। বুধবার অভিযুক্ত নারী কনস্টবেল ও এএসআইকে সোনাডাঙ্গা থানা থেকে বদলী করা হয়েছে।
সোনাডাঙ্গা মডল থানার অফিসার ইনচার্জ মমতাজুল হক খুলনা টাইমসকে জানান, নারী পুলিশ কনস্টবেল রাজিয়া সুলতানাকে লবণচরা থানায় এবং এএসআই মো: মাহামুদুল হাসানকে রপসা পুলিশ বক্সে বদলী করা হয়েছে। তাছাড়া তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে।  তবে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ ছিল বলেও জানান তিনি।

সূত্রমতে, রাজিয়া সুলতানার স্বামী খুলনা ওয়াসা’র কর্মচারী মো: রবিউল ইসলাম। তার অভিযোগের বলা হয়, নগরীর সোনাডাঙ্গা মডেল থানাধীন বউবাজার এলাকায় ১৫৫/৫ নম্বর হোল্ডিংয়ের সৈয়দ মঞ্জিলের নিচ তলায় ভাড়া থাকেন রবিউল ও তার স্ত্রী পুলিশ কনস্টবল রাজিয়া সুলতানা। আড়াই বছর বয়সের তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

গত ১ অক্টাবর রাত ৯টার দিকে রবিউল ওয়াসার পানির পাম্পে ডিউটিতে বের হন। এরপর রাত ২টার দিক তিনি বাসায় ফিরে স্ত্রী রাজিয়াকে দরজা খুলতে ডাকাডাকি করেন। এসময় অন্য দিনের তুলনায় একটু ব্যতিক্রম কিছু উপলব্দি করে রবিউল। তার স্ত্রী রাজিয়া দরজা খুলতে অনক সময় নেয়।

একপর্যায় স্বামীর অতিরিক্ত ডাকাডাকির পর দরজা খুল দেন। ঘর ডুকে রবিউল দেখেন তাদর শয়ন কক্ষের দরজায় তালা। তিনি স্ত্রী রাজিয়াকে ওই কক্ষের দরজা খুলতে বললে স্বামীকে অপর একটি কক্ষে ঘুমানার জন্য বলা হয়। কিন্তু রবিউল ওই ঘরের দরজা খুলতে বাধ্য করে স্ত্রী রাজিয়াকে। অবশেষে বেড়িয়ে এলো আসল রহস্য, খাটের নিচে পাওয়া গেল একই থানায় কর্মরত এএসআই হাসানকে।

রবিউল এ দৃশ্য দেখে হতবাক হয়ে ঘর থেকে বের হতে চাইলে স্ত্রী রাজিয়া ও এএসআই হাসান দ্রত তার গতি রোধ করার চেষ্টা করে। এসময় রবিউল চিৎকার দিলে এএসআই হাসান তার গলা চেপে ধরেন। তবে এলাকাবাসী এসে স্বামী রবিউলকে উদ্ধার করে। কিছুক্ষণ পরই সোনাডাঙ্গা মডেল থানার টহল গাড়ি এসে হাসান ও রাজিয়াকে নিয়ে যায়। সেই থেকে স্বামীর ঘরে আর ফেরেনি নারী কনস্টবেল রাজিয়া সুলতানা।
এলাকাবাসী জানায়, প্রায় সময় এএসআই হাসান রাজিয়াকে মোটরসাইকেল করে বাসার সামনে নামিয়ে দিয়ে যেত। স্বামীর অনুপস্থিতে তারা দু’জন সেদিন অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়েছিল। শিশু কণ্যা নিয়ে এখন রবিউল ওই বাসায় রয়েছেন। তবে পুলিশর সহায়তায় পুলিশ থাকবে এমনই আশঙ্কায় ভূগছেন তিনি।