খুলনায় প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ২০ লাখ জনসমাগমরে প্রস্তুতি

0
510

টাইমস ডেস্ক : খুলনা: আগামী ৩ র্মাচ খুলনায় আসছনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শখে হাসনিা। ওইদনি মহানগরীর র্সাকটি হাউজ মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজতি জনসভায় বক্তব্য দবেনে তনি।ি এদকিে জনসভায় বপিুলসংখ্যক লোক সমাগমরে প্রস্তুতি নয়িছেে মহানগর আওয়ামী লীগ।

প্রধানমন্ত্রীর খুলনায় আগমন উপলক্ষে মঙ্গলবার (২০ ফব্রেুয়ার)ি দুপুরে খুলনা প্রসেক্লাবে সাংবাদকিদরে সঙ্গে এক মতবনিমিয় সভায় খুলনা-২ আসনরে সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগরে সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মজিানুর রহমান প্রস্তুতরি বভিন্নি দকি তুলে ধরনে।

মজিানুর রহমান বলনে, আশা করছি জনসভায় দশ লাখরেও বশেি লোক সমাগম হব।ে জনসভায় নৌকার আদলে সুসজ্জতি মঞ্চ করা হব।ে মহা জনসমুদ্রে নারীদরে বপিুল সমাগম ঘটব।ে খুলনা বভিাগসহ গোপালগঞ্জ থকেওে আসবনে সাধারণ মানুষ ও নতোর্কমীরা। র্সাকটি হাউজ মাঠে প্রবশেে নারীদরে জন্য চারটি গটে থাকব।ে দু’টি থাকবে পুরুষরে জন্য। জনসভা নর্বিঘ্নি করতে সসিি ক্যামরো স্থাপন করা হব।ে এছাড়া এ জনসভা থকেইে আসন্ন খুলনা সটিি করপোরশেন নর্বিাচনে আওয়ামী লীগরে ময়ের র্প্রাথীর নামও ঘোষণা করতে পারনে প্রধানমন্ত্রী।

তনিি বলনে, এদকিে এ জনসভায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে খুলনা অঞ্চলে গ্যাস সংযোগ, খুলনা মডেকিলে বশ্বিবদ্যিালয়, কৃষি বশ্বিবদ্যিালয়, খুলনা ক্যাডটে কলজে, মরেনি একাডমে,ি র্পূণাঙ্গ আইটি ভলিজে, শখে আবু নাসরে বশিষোয়তি হাসপাতালে রসর্িাস সন্টোর, খুলনা জনোরলে হাসপাতালকে ৫০০ শয্যায় উন্নীতকরণ, খুলনা প্রসেক্লাবে বঙ্গবন্ধু মডিয়িা হাউজসহ বভিন্নি দাবি তুলে ধরা হব।ে

মহানগর আওয়ামী লীগরে সাধারণ সম্পাদক আরও বলনে, এক সময় খুলনা মহানগরী ছলিো উন্নয়ন বঞ্চতি। আইন-শৃঙ্খলা বলতে কছিুই ছলিো না। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর নগরীতে ব্যাপক উন্নয়ন র্কমকাণ্ড হয়ছে।ে ইতোমধ্যে খুলনায় দু’টি কলজে ও তনিটি স্কুল সরকারকিরণ করা হয়ছে।ে আরো দু’টি নতুন সরকারি স্কুল স্থাপনরে কাজ শুরু হয়ছে।ে দু’টি র্অথনতৈকি অঞ্চল হব,ে খুলনা মহানগরীতে সুপয়ে পানি সরবরাহ করার জন্য ওয়াসার কাজ শষে র্পযায়ে রয়ছে,ে বমিানবন্দররে কাজ চলছ,ে অচল হয়ে যাওয়া মোংলা বন্দর সচল

হয়ছে,ে লোকসানি প্রতষ্ঠিান খুলনা শপিইর্য়াড এখন লাভজনক প্রতষ্ঠিানে পরণিত হয়ছে।ে খানজাহান আলী সতেু (রূপসা সতেু) হওয়ায় খুলনায় ব্যবসা বাণজ্যিে গতি ফরিে এসছে।ে পদ্মা সতেু বাস্তবায়তি হয়ে এ অঞ্চলরে ব্যবসা-বাণজ্যিসহ র্সাবকি চত্রি পাল্টে যাব।ে

সংসদ সদস্য মজিান বলনে, এখনো খুলনায় পাইপ লাইনে গ্যাস সরবরাহ করা হয়ন।ি আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে অবলিম্বে গ্যাস সরবরাহরে জন্য দাবি জানাবো। প্রধানমন্ত্রী এ অঞ্চলরে উন্নয়নে সবসময় আন্তরকি, এ অঞ্চলরে মানুষও মনে করনে শখে হাসনিার সরকার ক্ষমতায় থাকলে খুলনাসহ দক্ষণি-পশ্চমি অঞ্চলরে মানুষরে উন্নয়ন হয়। আমরা আশাকরি যে প্রকল্পগুলো এখনও বাস্তবায়তি হয়নি প্রধানমন্ত্রী এবার সইে প্রকল্পগুলোও বাস্তবায়নরে ঘোষণা দবেনে।