খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের ভূখা মিছিল রেলে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও ভাংচুর

0
661

এম জে ফরাজী, নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনাটাইমস:

খুলনায় ভিক্ষুকের বেশে খাবারের থালা বাসন হাতে ভুখা মিছিল করেছে পাটকলের শ্রমিকরা। বকেয়া মজুরী ও মজুরী কমিশন গঠনসহ ১১ দফা দাবিতে রাষ্ট্রায়ত্ব ৮টি পাটকলের শ্রমিকরা এ মিছিল করেন। বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুটমিল সিবিএ-ননসিবিএ পরিষদের উদ্যোগে মাসব্যাপী আন্দোলন কর্মসূচীর অংশ হিসেবে কর্মবিরতির পাশাপাশি বুধবার বেলা ১১টায় মহানগরীতে ভুখা মিছিল করে শ্রমিক-কর্মচারীরা।
এদিকে ভুখা মিছিল চলাকালে শ্রমিকরা নতুন রাস্তার মোড় রেল ক্রসিংয়ে গেলে খুলনা রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহীগামী মহানন্দা ট্রেনে ব্যাপক ইটপাটকেল নিক্ষেপ এবং ট্রেনের গøাস ভাংচুর করে। এছাড়া খালিশপুর লির্বাটি কমপ্লেক্সের উত্তরা ব্যাংকের জানালার গøাস ও পাওয়ার হাউজের সামনের রূপলী ব্যাংকের জানালার গøাস ভাংচুর করা হয়।
খুলনা রেলওয়ে থানার ওসি মো: মরিুজ্জামান জানান, মহানন্দা ট্রেনটি যাওয়ার সময় আন্দোলনকারী শ্রমিকরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে কিছু গøাস ভেঙ্গে যায়। তবে কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।


এর আগে প্লাটিনাম, ক্রিসেন্ট, খালিশপুর, দৌলতপুর ও ষ্টার জুট মিলের শ্রমিকরা হাতে থালা, বাসন ও ঘটিবাটি নিয়ে স্ব স্ব মিল থেকে ভুখা মিছিল শুরু করে। পরে মিছিলটি বিআইডিএস রোড, দৌলতপুর নতুন রাস্তা, বিএল কলেজ রোড, কাশিপুর রোড ঘুরে ক্রিসেন্ট মিলের সামনে এসে শেষ হয়। এ সময় শ্রমিকদের বুকে ঝোলানো প্ল্যাকার্ডে দাবি আদায়ের নানা শ্লোগান লেখা দেখা যায়।
ভুখা মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তৃতা করেন রাষ্ট্রায়ত্ত জুটমিল সিবিএ-ননসিবিএ পরিষদের কার্যকরী আহবায়ক সোহরাব হোসেন, সাবেক সিবিএ সভাপতি দীন মোহাম্মদ, প্লাটিনামের সাবেক সাধারন সম্পাদক খলিলুর রহমানসহ বিভিন্ন পাটকলের সিবিএ নেতারা।
শ্রমিক নেতারা জানান, ২৮ ও ২৯ জানুয়ারী পাটকল শ্রমিকরা ৪৮ ঘন্টার মিলে ধর্মঘট পালন করবে। এছাড়া আগামী ৩১ জানুয়ারী সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত রাজপথ রেলপথ অবরোধের কর্মসূচী পালন করবেন। যাতে সব শ্রমিকদের উপস্থিত থাকার আহবান জানানো হয়।
উলে¬খ্য, বকেয়া মজুরীর দাবিতে বিদায়ী বছরের ২৮ ডিসেম্বর থেকে মিলের উৎপাদন কাজ বন্ধ করে কর্মবিরতি পালন করছে শ্রমিকরা। তবে গত বৃহস্পতিবার আংশিক মজুরি প্রদান করায় খালিশপুর ও দৌলতপুর জুট মিলের শ্রমিকরা কাজে যোগদান করে। আর প্লাটিনাম, ক্রিসেন্ট, স্টার, ইস্টার্ণ, আলীম ও জে জে আই জুট মিলের শ্রমিকরা এখনও উৎপাদন বন্ধ রেখেছে। তাদের দাবী বাস্তবায়ন না হওয়া পযর্ন্ত শ্রমিকরা কর্মবিরতি পালন করবে বলে ঘোষনা দিয়েছেন।#