খুলনায় পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের কর্মসূচি

0
829

তথ্যবিবরণী:

খুলনায় পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর-২০১৮ যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে উদযাপনের লক্ষ্যে সরকারিভাবে বিভিন্ন কর্মসূিচ গ্রহণ করা হয়েছে।

আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ঈদ-উল-ফিতরের প্রথম ও প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে আটটায় খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে এবং দ্বিতীয় ও শেষ জামাত খুলনা টাউন জামে মসজিদে সকাল সাড়ে নয়টায় অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া প্রতিকূল হলে টাউন জামে মসজিদে প্রথম ও প্রধান জামাত সকাল সাড়ে আটটায়, দ্বিতীয় জামাত সাড়ে নয়টায় এবং তৃতীয় ও শেষ জামাত সাড়ে ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া প্রতিকূল হলে কোর্ট জামে মসজিদে সকাল সাড়ে আটটায় একটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া বসুপাড়া ইসলামাবাদ ঈদগাহ ময়দানে, খুলনা আলিয়া কামিল মাদ্রাসা জামে মসজিদ, নিউমার্কেটস্থ বায়তুন-নূর মসজিদ কমপে¬ক্সে, খালিশপুর ঈদগাহ ময়দান, সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকা (২য় ফেজ), বায়তুল্লাহ জামে মসজিদ, নিরালা আবসিক এলাকা ঈদগাহ, খানজাহান নগর খালাসী মাদ্রাসা ঈদগাহ, দৌলতপুর ঈদগাহসহ অন্যান্য মসজিদ ও ঈদগাহসমূহে সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষ সময় নির্ধারণ সাপেক্ষে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ৩১টি ওয়ার্ডে সিটি কর্পোরেশনের সহায়তায় ও ওয়ার্ড কাউন্সিলরগণের তত্ত্বাবধানে পৃথকভাবে নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ঈদের দিন সকল সরকারি/আধা-সরকারি/বেসরকারি/স্বায়ত্বশাসিত ভবনে যথাযথভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা এবং সূর্যাস্তের পূর্বে নামানো হবে। নগরীর প্রধান প্রধান সড়কসমূহ ও গুরুত্বপূর্ণ চত্বর/সড়কদ্বীপ ও সার্কিট হাউস ময়দান জাতীয় পতাকা ও ঈদ মোবারক (বাংলা ও আরবী) খচিত ব্যানার দিয়ে সজ্জিত করা হবে।

ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে বাংলাদেশ বেতার, খুলনা বিশেষ অনুষ্ঠানমালা এবং স্থানীয় সংবাদপত্রসমূহ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করবে। বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশুসদন, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রে এ উপলক্ষে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হবে।

ঈদের পরে সুবিধাজনক দিন ও সময়ে শহীদ হাদিস পার্কে খুলনা জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে রাষ্ট্রীয় নীতি ও ধর্মীয় অনুভূতির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ চলচ্চিত্র /প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হবে।

ঈদ-উল-ফিতরের গুরুত্ব সম্পর্কে সুবিধামত সময়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এবং ইমাম পরিষদের উদ্যোগে সেমিনার ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। ঈদের দিন বিকেলে শিশু পার্কসমূহে দু:স্থ ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিনামূল্যে প্রবেশের ব্যবস্থা থাকবে। সুবিধাজনক সময়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে প্রীতি ফুটবল, জেলা শিল্পকলা একাডেমী অফিসার্স ক্লাবে ঈদ পুনর্মিলনী এবং জেলা শিল্পকলা একাডেমী সুবিধাজনক সময় ও স্থানে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য শিশু আনন্দমেলার আয়োজন করবে।

ঈদ উপলক্ষে আইনশৃংঙ্খলা রক্ষার্থে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মহানগর ও মহানগরের বাইরের বিভিন্ন স্পটে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। ঈদুল ফিতরের সময় আতশবাজি ও পটকা ফোটানো, রাস্তা বন্ধ করে স্টল তৈরি, উচ্চস্বরে মাইক/ড্রাম বাজানো, লাল রঙের পানি ছিটানো এবং বেপরোয়াভাবে মটর সাইকেল চালানো যাবে না।
ঈদ উপলক্ষে রাস্তার যত্রতত্র গেট নির্মাণ/পান্যা বা ব্যানার টানালে রাস্তা সংকুচিত হয়ে দুর্ঘটনার আশংকা রয়েছে এবং শহরের সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে। এজন্য গেট নির্মাণ/প্যানা বা ব্যানার না টানানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের নিরুৎসাহিত করতে হবে। এ লক্ষ্যে মিডিয়া/ মাইতের মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

প্রধান জামাত অনুষ্ঠানের সময় মুসুল¬¬ীদের গাড়ি পার্কিং এর জন্য খুলনা সার্কিট হাউজের হ্যালিপ্যাড, খুলনা অফিসার্স ক্লাব এবং জেলা স্টেডিয়াম সংলগ্ন আউটার স্টেডিয়াম সংরক্ষিত থাকবে। মুসুল¬ীদের অযুর জন্য পানির ব্যবস্থাও রাখা হবে।

বাস, লঞ্চ, স্টিমারে যাতে অতিরিক্ত যাত্রী উঠতে না পারে এবং বেপরোয়াভাবে যান চলাচল করতে না পারে তার জন্য আইনশৃংঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত থাকবে।

৩ জুন খুলনা জেলা প্রশাসক মোঃ আমিন উল আহসান এর সভাপতিত্বে তাঁর সম্মেলন কক্ষে প্র¯ত্ততিমূলক সভায় এ সকল কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। উপজেলা সমূহেও স্থানীয়ভাবে অনুরূপ কর্মসূচি পালন করা হবে।