খুলনায় ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে পুলিশ সদস্যের চাঁদা দাবি!

0
1049

নিজস্ব প্রতিবেদক : খুলনার খানজাহানআলী থানার এএসআই শফিকুলের বিরুদ্ধে ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে গতকাল সোমবার খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কাছে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন শিরোমনি উত্তরপাড়ার ভুক্তভোগী মুরাদ শেখের স্ত্রী রাবেয়া বেগম।
অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, ‘গত ২৭/০৫/২০১৯ইং তারিখ রাত আনুমানিক ৮টা ৩০ মিনিটে খানজাহানআলী থানার এএসআই মোঃ শফিকুল ইসলাম এবং মোঃ লুৎফর শিরোমনি উত্তরপাড়া মুরাদ শেখের বাড়ীতে যায়। তখন মুরাদকে পার্শ্ববর্তী উপজেলা চেয়ারম্যানের দিঘির পাড়ে নিয়ে বিভিন্ন মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ২০ হাাজার টাকা দাবি করে। পরবর্তীতে তাদের পরিবার পরিজনের ঈদের কেনাকাটার জন্য রক্ষিত ১১ হাজার টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয়। এছাড়া প্রায় দুই মাস পূর্বে মুরাদের শ্যালক আসাদুল ইসলাম সাতক্ষীরা থেকে বেড়াতে আসলে কোন কারণ ছাড়াই এএসআই শফিকুল তাকে বাড়ীতে এসে বলে ওসি স্যার ডাকছে। তারপর থানায় নিয়ে বিভিন্ন মামলায় ফাসানোর হুমকি দেয় পরবর্তীতে ১০ হাজার টাকা নিয়ে তাকে কেএমপিতে চালান করে।’
তিনি আরও উল্লেখ করেন, ওসি সাহেবের কথা বলে নিয়ে আসলেও মুরাদকে ওসি সাহেবের সামনে হাজির করেনি এএসআই শফিকুল। সর্বশেষ গতকাল বেলা আনুমানিক ২.৪৫ এর দিকে এএসআই শফিকুল ও সাথে একজন অফিসারকে নিয়ে শিরোমনি উত্তরপাড়া আমাদের বাড়ীতে আসে। এ সময় তারা বাড়ির দরজা-জানালায় লাথি মারে এবং ঈদের আগে ৫০ হাজার টাকা না দিলে আমার স্বামীকে ক্রসফায়ারে দেওয়া হবে বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে চলে আসে।’
ভুক্তভোগী রাবেয়া বেগম জানান, ‘এএসআই শফিকুলের কাছে তার পুরো পরিবার জিম্মি। এ বিষয়ে তিনি কেএমপি কমিশনারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তিনি তদন্ত সাপেক্ষে অতি দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।’
এ বিষয়ে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি)’র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া এন্ড পিআর) শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু বলেন, অভিযোগটি তিনি এখনো দেখেননি। তাদের কাছে আসলে তখন বিস্তারিত বলতে পারবেন।