খুলনায় কোটা পদ্ধতি সংস্কারে আন্দোলন

0
717

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনাটাইমস:

“বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যর ঠাই নাই” এই স্লোগানে পূর্বঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে রোববার সাধারন শিক্ষার্থী ব্যানারে খুলনার জিরো পয়েন্ট এলাকায় জড়ো হয়ে শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কারে ৫ দফা দাবি জানায়।

দাবি গুলোর মধ্যে রয়েছে -কোটা ব্যবস্থা সংস্কার করে ৫৬% থেকে ১০% আনা, কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্য পদ গুলোতে মেধায় নিয়োগ দেওয়া, চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় সবাইকে সমান সুযোগ দেওয়া,কোটায় কোনো বিশেষ নিয়োগ পরীক্ষা নয়, চাকরীর ক্ষেত্রে সবার জন্য কার্টমার্কস ও বয়সসীমা করা।

শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ সমাবেশে বলেন -বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় তারা কোনো বৈষম্য দেখতে চান না,তারা কোটা বিরোধী নয়, কিন্তু কোটার সংখ্যা কমাতে চান। ১৬ কোটি মানুষের বাংলাদেশে ৫৬% কোটা পদ্ধতি থাকার কারনে লক্ষ লক্ষ যুবক চাকরি বঞ্চিত হচ্ছে ফলে প্রকৃত মেধাবীদের মূল্যায়ন করা হচ্ছে না।সর্বোপরি দেশের স্বার্থে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবি জানান।

 

উল্লেখ্য মুক্তিযোদ্ধা, সংখ্যালগু উপজাতি, প্রতিবন্ধী ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ব্যক্তিদের জন্য ৫৬% কোটার ব্যবস্থা রয়েছে।

৫৬ শতাংশ কোটা থাকায় সাধারণ চাকরি-প্রত্যাশীরা বৈষম্যের স্বীকার হচ্ছেন। এরপরও বিভিন্ন সময় কোটায় বিশেষ নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। যেমন: ৩২তম বিসিএস, বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে বিশেষ কোটায় নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

আন্দোলনে অংশ নেওয়া এক শিক্ষার্থী বায়েজীদ ফয়সাল খুলনাটাইমসকে বলেন, তিনি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। তাঁর মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকা সত্ত্বেও তিনি এই কোটা চান না। এমনকি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সময় তিনি ওই কোটায় আবেদন করবেন না।

বিক্ষোভকারীরা জানান, কোটার প্রার্থী না পাওয়ায় ২৮তম বিসিএসে ৮১৩ জনের পদ শূন্য ছিল। একইভাবে ২৯তম-তে ৭৯২ জন, ৩০তম-তে ৭৮৪ জন, ৩১তম-তে ৭৭৩ জন, ৩৫তম-তে ৩৩৮ জনের পদ শূন্য ছিল। এই শূন্য পদ না রেখে সেখানে মেধা থেকে প্রার্থী নিয়োগের দাবি তাঁর।