খুলনায় অল্পের জন্য বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো কিশোরী

0
478

টাইমস প্রতিবেদক:
খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের গোয়াল পাড়া গ্রামের ভ্যান চালক আজগার সরদারের মেয়ে ও ফাতেমা মেমোরিয়াল স্কুলের ৯ম শ্রেনির ছাত্রী মিম্মা আক্তার (১৪) কে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে অভয়নগরের সিদ্দিপাড়া নামক গ্রামের কলেজ পড়–য়া শরিফুল (আকাশ) নামে এক যুবকের সঙ্গে বিয়ে ঠিক করে মিম্মার পরিবার। ছেলের পক্ষের অতিথি বিয়ের জন্য মেয়ের বাড়ীতে আসার কথা বেলা ২টায়। এদিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শম্পা কুন্ডু ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নিয়ে মেয়ে বাড়ীতে হাজির হন। এসময় মেয়ের পরিবার কৌশলে মেয়ের বিয়ের কথা এড়িয়ে যাবার চেষ্টা করলেও রান্নার আয়োজনসহ প্রতিবেশীদের স্বাক্ষ্য প্রমানে এর সত্যতা পাওয়া যায়।
এসময় সংবাদ পেয়ে সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোল্যা ফিরোজ হোসেন, বারাকপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গাজী জাকির হোসেন, সেনহাটি ইউপি চেয়ারম্যান গাজী জিয়াউর রহমান, যোগীপোল ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমান ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হন। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শম্পা কুন্ডু জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে মেয়ের বাবা ও মায়ের থেকে ১৮ বছর পুর্ণ না হওয়ার আগে মিম্মাকে বিয়ে না দেওয়ার শর্তে মুসলেকা নেওয়া হয় এবং বিয়ের আয়োজন বন্ধ করে দেওয়া হয়।