খুলনার মানুষ নৌকার সুবাতাস সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়েছে : হানিফ এমপি

0
510

বিজ্ঞপ্তি: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, খুলনা মহানগরীর মানুষকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানাতে খুলনায় এসেছি। কারণ খুলনার মানুষ সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের বুঝিয়ে দিয়েছে যে, উন্নয়নের বিকল্প কিছু নেই। খুলনা তথা দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন তালুকদার আব্দুল খালেককে নৌকায় ভোট দিয়েছে। এ অঞ্চলের মানুষ শেখ হাসিনা এবং নৌকার উপর আস্থা রাখে। খুলনার মানুষ নির্বাচনের সুবাতাস সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়েছে। সেই সুবাতাসের কারনেই আজ গাজীপুর সহ সারা দেশে বিজয়ের ঝা-া নিয়ে মানুষ উন্নয়নের পক্ষে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। তাদের সেই আস্থার জায়গাকে দুর্বল করতে বিএনপি জামায়াতকে নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। বিএনপি’র নেতারা খুলনা এবং গাজীপুরের নির্বাচনকে বিশ্বব্যাপী বিতর্কিত করতে নানা ষড়যন্ত্র চালিয়েছে। বিএনপি’র নেতারা মোবাইলে তাদের ক্যাডার দিয়ে নির্বাচনী কেন্দ্রে বোমা হামলা চালিয়ে নির্বাচনকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বির্তক সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করে ব্যর্থ হয়েছে। এখন তারা বলছে নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়নি। পুনর্য়া নির্বাচন দিতে হবে। তিনি বলেন, “হেরে গেলে সুষ্ঠু হয়নি আর জিতে গেলে ফেয়ার হয়েছে।” এ সব কথা পরিহার করার জন্য বিএনপি’র নেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, আজকে একটি দেশ বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলছে, যারা নিজেদের নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করে, তাদের অন্য দেশের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলা অগ্রহণযোগ্য। তিনি আরো বলেন, যারা মায়ানমারের রহিঙ্গা এবং গণতন্দ্রকে রক্ষা করতে পারে নাই, তাদের মুখে বাংলাদেশের মানবাধিকার এবং গণতন্ত্র রক্ষার কথা মানায় না। তিনি নিজেদের স্বচ্ছতা সৃষ্টি করার জন্য ওই দেশটির প্রতি আহবান জানান।
শুক্রবার বিকাল ৪টায় শহীদ হাদিস পার্কে মহানগর শ্রমিক লীগ আয়োজিত নব নির্বাচিত মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেককে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
মহানগর শ্রমিক লীগ সভাপতি আবুল কাশেম মোল্লার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক রনজিত কুমার ঘোষের পরিচালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি নগরবাসির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে দেশ ও জনগণের কোন উন্নয়ন হয় না। তালুকদার আব্দুল খালেক খুলনার মেয়র থাকাকালীন ৭ শ’ কোটি টাকা রেখে গিয়েছিলেন। সেই টাকা যথেচ্ছা খরচ করেছে অথচ নগরীর কোন উন্নয়ন হয়নি। নগরীর উন্নয়ন বন্ধ রেখে সেই অর্থ লুটপাট করেছে। জনগণ এই লুটপাটের জবাব দিতেই খুলনা এবং গাজীপুরে নৌকায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাকে অব্যহত রাখার জন্য রায় দিয়েছেন। এই রায়কে সামনে রেখে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চতুর্থ বারের মত দেশ পরিচালনায় রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনার জন্য তিনি দলের নেতাকর্মী এবং খুলনা বাসীর প্রতি আহবান জানান।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও নব নির্বাচিত মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় কমিটির শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি, প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন, বিশেষ বক্তার বক্তব্য রাখেন, সদর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম। এসময়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শ্রমিক নেতা মো. মোতালেব মিয়া, সৈয়দ এমদাদুল হক, মো. মাকলুকার রহমান, কাজী আব্দুল ওহাব, আব্দুর রহিম, সেলিম রাজু। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড. চিশতি সোহরাব হোসেন শিকদার, নুর ইসলাম বন্দ, শেখ মো. ফারুক আহমেদ, শ্যামল সিংহ রায়, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, এ্যাড. নিমাই চন্দ্র রায়, অধ্যাপক আলমগীর কবীর, এ কে এম সানাউল্লাহ নান্নু, উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আকরাম হোসেন, অসিত বরণ বিশ্বাস, শফিকুর রহমান পলাশ, কাউন্সিলর মেমরী সুফিয়া রহমান শুনু, কাউন্সিলর আমেনা হালিম বেবী, কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মদ আলী, কাউন্সিলর মাহফুজুর রহমান লিটন, কাউন্সিলর কনিকা সাহা সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।