খাসোগি হত্যা নিয়ে ঊর্ধ্বতন সৌদি কর্মকর্তার নতুন ভাষ্য

0
410

খুলনা টাইমস ডেস্ক : সাংবাদিক জামাল খাসোগির হত্যকাণ্ড নিয়ে সর্বশেষ আরেকটি নতুন ভাষ্য দিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সৌদি আরবের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। খাসোগি ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে ‘হাতাহাতির এক পর্যায়ে’ মারা যান বলে সৌদি আরব যে বিবৃতি দিয়েছে তার সঙ্গে এ সৌদি কর্মকর্তার বক্তব্যের মিল নেই। তার কথায় উঠে এসেছে খাসোগিকে হত্যার বিস্তারিত বিবরণ।
তিনি বলছেন, খাসোগিকে হত্যা করা নয় বরং তাকে অপহরণ করতে গিয়েছিল ১৫ সৌদির একটি দল। কিন্তু দলটি তাদের ওপর যে নির্দেশ ছিল তার মাত্রা ছড়িয়ে গিয়ে আগেভাগেই বেশি বাড়াবাড়ি করে ফেলায় গোড়াতেই সব গলদ হয়ে যায়।
দলটি খাসুগজিকে জোরজবরদস্তি করে অপহরণ করার হুমকি দেয়। খাসোগি তখন গলার স্বর চড়িয়ে তাদেরকে বাধা দিতে গেলে তারা তার গলা চিপে ধরায় তিনি মারা যান। এরপর ওই সৌদি দলটির এক সদস্য খাসোগির কাপড় খুলে তা পরেন, যাতে মনে হয় খাসোগি কনস্যুলেট থেকে বেরিয়ে গেছেন।
সৌদি ওই কর্মকর্তা জানান, এক বছর আগে নিপীড়নের শিকার হওয়ার আশঙ্কায় ওয়াশিংটনে পাড়ি জমানো খাসোগিকে বুঝিয়ে শুনিয়ে দেশে ফিরিয়ে নিতে চেয়েছিল সৌদি আরব সরকার। সৌদি আরবের শত্ররা যাতে সৌদি ভিন্নমতাবলম্বীদের দলে ভেড়াতে না পারে সে চেষ্টাতেই নেওয়া হয়েছিল এ পদক্ষেপ।
আর একাজটি করার জন্য গোয়েন্দা উপপ্রধান আহমেদ আল আসিরি গোয়েন্দা বিভাগ এবং নিরাপত্তা বাহিনী থেকে ওই ১৫ সদস্যের দল গঠন করে ইস্তাম্বুলে পাঠান খাসোগির সঙ্গে দেখা করে তাকে দেশে ফিরতে রাজি করানোর জন্য।
নির্দেশ ছিল আলোচনার মধ্য দিয়ে খাসোগিকে রাজি করিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে দেশে ফেরত আনার। এজন্য যতটুকু যা করা প্রয়োজন সে ক্ষমতা দেওয়া হয়েছিল দলটিকে।