খালিশপুরে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের সমন্বয়ে ঈদ ও পহেলা বৈশাখ উদযাপন

0
32

নিজস্ব প্রতিবেদক
খালিশপুর থানাধীন আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের সমন্বয়ে ঈদ ও পহেলা বৈশাখ-১৪৩১ উদযাপন অনুষ্ঠানে কেএমপি’র পুলিশ কমিশনার উপস্থিত ছিলেন। শনিবার (১৪ এপ্রিল) সকাল ৮টায় খালিশপুর থানাধীন আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের সমন্বয়ে প্রভাতী স্কুল প্রাঙ্গণে ঈদ ও বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ-১৪৩১ উদযাপন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বেলুন, ফেস্টুন ও শান্তির পায়রা উড্ডয়নের মধ্য দিয়ে ঈদ ও বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ-১৪৩১ উদযাপন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন খুলনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য এস এম কামাল হোসেন।
ঈদ ও বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ-১৪৩১ উদযাপন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন শেষে আমন্ত্রিত অতিথিবর্গ নববর্ষে বাঙালির চিরাচরিত প্রথা পান্তা-ইলিশ গ্রহণ করেন।
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মোজাম্মেল হক বিপিএম-বার, পিপিএম-সেবা।
ঈদ ও পহেলা বৈশাখ-১৪৩১ উদযাপন অনুষ্ঠানে পুলিশ কমিশনার উপস্থিত সকলকে সালাম এবং বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন। বক্তব্যে তিনি বলেন, আমরা সবাই জানি যে নববর্ষের শুরুটা হয়েছিল ফসলি সন কে কেন্দ্র করে মোঘল সম্রাট আকবরের শাসনামলে। কিন্তু এটি এখন আর ফসলি সন নয়। পাকিস্তানি স্বৈরাচারী শাসনামলে পাকিস্তানি স্বৈরশাসকদের রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে এদেশের সাংস্কৃতিক শিল্প গোষ্ঠী বাংলা নববর্ষ বরণ অনুষ্ঠানটি শুরু করেছিলেন। পরবর্তীকালে সামরিক স্বৈরাচারী বিরোধী বাঙালির সহস্র বছর প্রাচীন এই আন্দোলন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল। এই একটি অনুষ্ঠানই বাংলা এবং বাঙালি জাতিসত্ত্বাকে এককভাবে ধারণ করে। কারণ এখানে সকল জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে ছোট-বড় সকলেই নববর্ষের এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে। বাঙালি জাতিসত্ত্বার উন্মেষ এবং বিকাশ লাভে ও এই অনুষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। ১৯৭১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৩০ লক্ষ শহীদ এবং দুই লক্ষ নারীর সম্ভব এর বিনিময়ে এই জনপদটি স্বাধীনতার অর্জন করেছিল। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং স্বাধীনতার যে চেতনা অসাম্প্রদায়িক সে চেতনাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সকল জাতি, ধর্ম, বর্ণের মানুষ একতাবদ্ধ কাজ করতে হবে। তাহলে এই দেশটি ক্ষুধা মুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত সাম্প্রদায়িকতা মুক্ত, সকল ধর্মের অপসংস্কার মুক্ত এবং অপসংস্কৃতি মুক্ত একটি সুখী সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ আমরা গড়ে তুলতে পারবো। এটিই হোক আজকের নববর্ষের প্রথম দিনে আমাদের প্রতিজ্ঞা। সবশেষে পুলিশ কমিশনার উপস্থিত সকলের মঙ্গল কামনা করে বক্তব্য সমাপ্ত করেন।
ঈদ ও পহেলা বৈশাখ-১৪৩১ উদযাপন অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবলুর রানা; খালিশপুর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ কে এম সানাউল্লাহ নান্নু; খালিশপুর থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মনিরুল ইসলাম বাশার। ঈদ ও পহেলা বৈশাখ-১৪৩১ উপলক্ষ্যে আয়োজিত মেলা উদযাপন কমিটির আহবায়ক কাইজার আহমেদ।