কড়বাজারে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারি নিহত

0
173

টাইমস ডেস্ক:
কড়বাজারে মেজর সিনহা হত্যার দীর্ঘ ৮২ দিন পর বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ইয়াবা কারবারি রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। এ সময় ৪০ হাজার পিস ইয়াবাসহ একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও তাজা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বুধবার ভোর ৪টার দিকে কড়বাজার ৩৪ বিজিবির বাইশ ফাঁড়ির মিয়ানমার সীমান্ত রেখায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। কড়বাজার ৩৪ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ এ তথ্য জানিয়েছেন। নিহত ইয়াবা কারবারি আদহাম (২৩) নাইক্ষ্যংছড়ির তমব্রু কোনাপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরের আবুল হাসেমের ছেলে। বিজিবি অধিনায়ক জানান, গতকাল বুধবার ভোরে খবর আসে কড়বাজার ৩৪ বিজিবি ব্যাটালিয়নের বাইশফাঁড়ি বিওপি এলাকা দিয়ে মাদকের চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে ঢুকতে পারে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে বাইশফাঁড়ি বিওপির দুইটি আভিযানিক টহল দল বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ৩নং ঘুমধুম ইউনিয়নের দক্ষিণ বাইশফাঁড়ি মক্করটিলার উত্তর দিকে রাস্তার ঢালুতে অবস্থান নেয়। ভোর আনুমানিক ৪টার দিকে ১০-১২ জনের একদল লোককে পাহাড়ি এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের দিকে আসতে দেখে চ্যালেঞ্জ করলে টহল দলকে লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ শুরু করে তারা। এ সময় টহল দলও পাল্টা গুলি করে। একপর্যায়ে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পাহাড়ি জঙ্গলের মধ্য দিয়ে মিয়ানমারের ভেতরে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহল দল ঘটনাস্থলে উপাাস্তত হলে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। তাকে উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেড়ে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ম”ত ঘোষণা করেন। হাসপাতালে আনার সময় জিজ্ঞাসাবাদে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়। ঘটনাস্থল থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি একনলা বন্দুক ও ২ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। গোলাগুলির সময় বিজিবি দুই সদস্য আহত হন। তাদের উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেড়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।