কেশবপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আহত : থানায় অভিযোগ

0
165

কেশবপুর প্রতিনিধি:
কেশবপুরের মঙ্গলকোট গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী খাদিজা বেগম কে পিটিয়া ও পিচের রাস্তার উপর টানাটানি করে মারাত্বক আহত করেছে। গর্ভের সন্তান সহ আশংখজনক অবস্থায় তাকে খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কেশবপুর থানায় অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে উপজেলার মঙ্গলকোট গ্রামের লুৎফর রহমানের পুত্র শফিকুল ইসলামের সাথে প্রতিবেশি আপন চাচা সাখায়াত হোসনের বসতবাড়ির আঙ্গিনায় তিন শতক জমি নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলে আসছে। ১৭৮ আর এস খতিয়ানের ৩৮ দাগের ৩ শতক জমিতে শফিকুল ইসলামের দোকান ঘর রয়েছে । ঘটনার দিন ১৭ মে সন্ধ্যায় সাখায়াত হোসনের নেতৃত্বে তারপুত্র রফিকুল ইসলাম (৩৫) রফিকুলের শ্বশুর একই গ্রামের মজিবর রহমান (৫০),তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৪৮), রফিকুলের স্ত্রী আজ্ঞুয়ারা বেগম (৩০)সহ ১০/১২ জন লাঠিসোটা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে শফিকুল ইসলাম দোকানে হামলা করে। এসময়ে তার ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী খাদিজা বেগম (২৭) এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা তার স্ত্রীকে মারপিট করে আহতকরে তাকে ধরে পিচের রাস্তার উপর টানাটানি করে। হামলা কারীরা তার দোকানের ৯০ হাজার টাকা লুটকরে দোকানের চাবি নিয়ে নেয় এবং দোকানঘর ভাংচুর করে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকার ক্ষতিগ্রস্ত করে তাকে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দিয়ে চলে যায়। শফিকুলইসলাম তাঁর মারাত্বক আহত স্ত্রীকে আশংকাজনক অবস্থায় খুলনা ২৫০ শয্যা ভর্তিকরে। শফিকুল ইসলাম প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।
এব্যাপারে থনার এস আই অরূপ কুমার জানান বিরোধটি মিমাংশা করা হয়েছে। তবে শফিকুলের স্ত্রীর অবস্থা আশংকাজনক। সে সুস্থ্য না হওয়া পযন্ত চুড়ান্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। এদিকে হামলা কারীরা বিষয় টি নিঃপত্তি না করে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভিতি ও হুমকি প্রদান করছে। সে নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে।

খুলনা টাইমস/এমআইআর