কুল্যায় ব্যবসায়ীকে জিম্মী করে টাকা ছিনতাই!

0
236

আশাশুনি প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার কুল্যায় অস্ত্রের মুখে জিম্মী করে এক ব্যবসায়ীর নিকট থেকে ৮০ হাজার টাকা ছিনতাই করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের পুরোহিতপুর গ্রামে। ঘটনাটি অভিভাবকদেরকে জানানোয় পুনরায় ব্যবসায়ীকে দিনভর আটকে নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুরোহিতপুর গ্রামের সার ও কীটনাশক ব্যবসায়ী রাজকৃষ্ট ঘোষের ছেলে নন্দলাল ঘোষ জানান, জানুয়ারি মাসে তিনি কচুয়া গ্রামের মেছের ঢালীর ছেলে জহুরুলের কাছে সার ও কীটনাশক বিক্রয় করেন। ১ ফেব্রুয়ারি জহুরুল দোকানিকে ডেকে তার ক্ষেতে নিয়ে ধানের অবস্থা ভাল না হওয়ায় কি করা যায় পরামর্শ চান। সন্ধ্যায় দোকানে গেলে কি ওষুধ দিতে হবে জানাবে বলে ব্যবসায়ী বাড়িতে ফিরছিলেন। কচুয়া প্রাইমারী স্কুলের পশ্চিম পার্শের দোকানের সামনে পৌছলে স্থানীয় মাদকাসক্ত মাছুদ, ইসলাম, জিয়া, বাবু ও সাকিল তাকে আটকে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষদ দিয়েছিস কেন মিথ্যা অভিযোগ করে তাকে তার দোকানে নিয়ে যায়। এরপর ক্রেচ বের করে অস্ত্রের মুখে জিম্মী করে ক্যাশ বাক্স থেকে নগদ ৮০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং একটি ব্যাংক চেকে স্বাক্ষর করিয়ে পুরো চেক বই হাতিয়ে নেয়। ঘটনা কাউকে জানালে জীবনে শেষ করে দেওয়া হবে বলে হুমকী দেওয়া হয়। ভয়ে ভীত নন্দলাল কাউকে কিছু বলতে সাহস করেনি। ৪ ফেব্রুয়ারি ঔষধ কোম্পানীর লোক টাকা নিতে আসলে দোকানী টাকা দিতে অপারগতার কথা বলে। একপর্যায়ে ঘটনা জানানোর সময় তার মা ও বাবা শুনতে পায়। এদিন সন্ধ্যায় তার পিতা ঘটনাটি স্থানীয় ইউনিয়ন আ’লীগ সেক্রেটারী আবু সাইদ ঢালী ও ছিনতাইকারীদের অভিভাবকদেরকে জানান। পরদিন বুধবার ছিনতাইকারী সাকিল ও বাবু ব্যবসায়ী নন্দলালকে চেক ফেরৎ দেওয়ার কথা বলে দোকান থেকে তাকে মটর সাইকেলে উঠিয়ে নিয়ে কচুয়ার একটি মৎস্য ঘেরের বাসায় আটকে দিনভর নির্যাতন করে। স্থানীয় এক মহিলারা জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গেলে তাকে ছেড়ে দেয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মধুসুদন ঘোষ, মহাদেব, তাপস, রাম প্রসাদ ঘোষসহ গ্রামের অর্ধ শতাধিক মানুষ বিষয়টি নিয়ে বসেন এবং সাংবাদিকদেরকে জানানো ও থানায় মামলা দায়ের করার সিন্ধান্ত নেওয়া হয়। এব্যাপারে কুল্যা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ ঢালী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাংবাদকিদের জানান, তিনি ইতিমধ্যে চেক বইটি উদ্ধার করে দিয়েছেন। ইউপি সদস্য আঙ্গুর হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তার মোবাইল বন্ধ থাকার কথা বলা সম্ভব হয়নি।