কলম্বিয়াকে টাইব্রেকারে হারিয়ে একযুগ পর কোয়ার্টারে ইংল্যান্ড

0
365

স্পোর্টস ডেস্ক:
সব শেষ ২০০৬ বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিল ইংল্যান্ড। তারপরে শেষ দুটি বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন করলেও শেষ আটে জায়গা করে নিতে পারেনি। তবে রাশিয়া বিশ্বকাপে কলম্বিয়াকে টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে হারিয়ে ১২ বছর পর কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গেলো হ্যারি কেন নেতৃত্বাধীন দলটি।

এদিন ম্যাচের শুরুর আগেই দক্ষিণ আমেরিকার দলটির জন্য খারাপ খবর ছিল। চোটের কারণে গেলো বিশ্বকাপের গোল্ডেন বুট জয়ী হামেস রদ্রিগেজ মাঠের বাইরেই ছিলেন। রাদেমাল ফ্যালকাওকে সামনে রেখে আক্রমণ সাজিয়েছিল কলম্বিয়া।

এদিকে ইংলিশরাও কেনের নেতৃত্বে আক্রমণ চালাতে থাকে। তবে প্রথমার্ধে কোনও দলই বিশেষ সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। দ্বিতীয়ার্ধের ৫৭তম মিনিটে বক্সে ফাউল হলে পেনাল্টি পায় ইউরোপের দেশটি। চলতি বিশ্বকাপে নিজের ষষ্ঠ গোল করে ইংল্যান্ডকে এগিয়ে দেন টটেনহ্যাম হটসপার তারকা কেন।

দ্বিতীয়ার্ধে থ্রি লায়ন্সরা বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও গোল আসেনি। ওদিকে কলম্বিয়ানরাও কম যায়নি। বেশ কয়েকবার আক্রমণে উঠেছিল। তবে অধিনায়ক ফ্যালকাও এদিন নিষ্প্রভ ছিলেন। বায়ার্ন মিউনিখ তারকা রদ্রিগেজের অভাব যেনো বারবার অনুভূত হচ্ছিল।

৯০ মিনিটের পর ৫ মিনিট অতিরিক্ত সময় দেন রেফারি। ৯৩ মিনিটে কর্নার থেকে সমতা ফেরান ইয়ের মিনা। গেলো ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও হেডে গোল করেন বার্সেলোনার এই তারকা ডিফেন্ডার। ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত মিনিটে।

পরের ৩০ মিনিটেও দুই দল গোলের মুখ খুলতে পারেনি কেউই। কলম্বিয়া সেই টাইব্রেকারে টেনে নিয়ে যায় ইংল্যান্ডকে। তবে সেখানে ৩ গোল করার পরে শেষ দুটি গোল আর করতে পারেনি কলম্বিয়া। মাতিয়াস উরিবে বারপোস্টে লাগিয়ে পেনাল্টি নষ্ট করেন। আর শেষে কার্লোস বাকার শট আটকে দেন ইংল্যান্ড গোলরক্ষক পিকফোর্ড।

শেষ পর্যন্ত ৪-৩ ব্যবধানে ম্যাচ জেতে হ্যারি কেনের দল। এই প্রথম ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে পেনাল্টি শুটে জিতে পরের রাউন্ডে উঠলো। এদিকে কলম্বিয়া বিশ্বকাপে তাদের শেষ চারটি নক আউট ম্যাচের মধ্যে তিনটিতে হেরে বিদায় নিলো।

আগামী ৭ জুলাই শনিবার সামারায় সেমিতে যাবার লড়াইয়ে সুইডেনের বিপক্ষে মাঠে নামবে ইংলিশরা।