করোনা প্রতিরোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা মেনে চলার পরামর্শ

0
149

খুলনাটাইমস ডেস্ক : প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ করোনা ভাইরাস নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সকলকে, বিশেষ করে প্রবাসী কর্মীদের আতংকিত না হয়ে সরকারের দেয়া সতর্কতামূলক ব্যবস্থা সঠিকভাবে মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন। যে কোনো পরিস্থিতিতে সরকার তাদের পাশে থাকার আশ্বাস পুনর্ব্যক্ত করে তিনি বলেন, যাদের জন্য কোয়ারেন্টাইন প্রযোজ্য, তাদের তা দায়িত্বশীলতার সাথে মেনে চলতে হবে। রবিবার দুপুরে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ এবং দিকনির্দেশনা দেয়ার লক্ষ্যে এক জরুরি সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। সভায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, জননিরাপত্তা বিভাগ ও সুরক্ষা বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তা, ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) ও ইন্টারন্যাশনাল লেবার অর্গানাইজেশন (আইএলও) এবং বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ফর ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিস (বায়রা)’র প্রতিনিধিসহ অভিবাসন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সেলিম রেজার পরিচালনায় এই সভায় বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রসারের প্রেক্ষিতে প্রবাসী, বিদেশ ফেরত এবং বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীদের স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তাসহ সামগ্রিক কল্যাণ নিশ্চিতকরণ বিষয়ে মতবিনিময় করা হয়। আলোচনায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী উল্লেখ করেন, সরকারী সিদ্ধান্তও বিভিন্ন নির্দেশনার আলোকে প্রবাসী, বিদেশ ফেরত এবং বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীদের সামগ্রিক সুরক্ষার জন্য যা যা করণীয় তা সংশ্লিষ্ট সকল অংশীজনকে সঙ্গে নিয়ে সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করা হবে। সভায় গৃহীত সিদ্ধন্তের মধ্যে রয়েছে- করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে প্রতিরোধের জন্য করণীয় বিষয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হবে। মন্ত্রণালয়ের মাঠ পর্যায়ের অফিসসমূহ, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ফর ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিস (বায়রা) এবং সংশ্লিষ্ট এনজিওসমূহ সচেতনতা এবং অবস্থা পর্যবেক্ষণ প্রক্রিয়ায় যুক্ত হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরামর্শ অনুযায়ী ১ মার্চ ও এর পর থেকে যুক্তরাজ্য ব্যতীত অন্যান্য ইউরোপীয় দেশসমূহে থাকা বাংলাদেশীদের আপাতত দেশে না আসার পরামর্শ কার্যকর করার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দেশসমূহের মিশনের শ্রম কল্যাণ উইং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এছাড়া, একান্ত অনিবার্য না হলে প্রবাসী কর্মীগণ যাতে আন্তঃদেশীয় চলাফেরা সাময়িকভাবে বন্ধ রাখেন সে বিষয়েও দূতাবাসসমূহে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে। এছাড়া বিদেশ থেকে ছুটিতে আসা এবং নতুনভাবে বিদেশগামী কর্মীদের ভিসার মেয়াদ নিয়ে উদ্বিগ্ন না হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। কারণ ইতোমধ্যে এ বিষয়ে সৌদি আরব, কুয়েত, কাতারসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতগণের সাথে আলোচনা হয়েছে এবং তাঁরা কর্মীদের ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির আশ্বাস দিয়েছেন। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী সভায় জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও অংশীজনের সাথে সমন্বয়ের জন্য অতিরিক্ত সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীনকে ফোকাল পার্সন নির্ধারণ করা হয়েছে । তার নেতৃত্বে একটি কমিটি প্রতি সপ্তাহে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবে এবং মন্ত্রণালয় অংশীজনদের সাথে পরামর্শক্রমে সময়োপযোগী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। সুষ্ঠু সমন্বয়ের সুবিধার্থে তিনি অন্যান্য সকল মন্ত্রণালয় বা বিভাগেও অনুরূপ ফোকাল পারসন নির্ধারণের অনুরোধ জানান।