ওজোপাডিকোর অনিয়মের চিত্র তুলে ধরে খুলনায় সভা

0
497

খবর বিজ্ঞপ্তি: ওজোপাডিকোর হাতিয়ে নেয়া দুইশ’ কোটি টাকার
রিবেট বাবদ ২কোটি টাকা ফেরত চায় খুলনাবাসী
‘প্রি-পেইড মিটার নিয়ে জনমনে ক্ষোভ, সমাধানেl  নেই কোন উদ্যোগ’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেছেন, ইতোপূর্বে হাতিয়ে নেয়া দু’শ কোটি টাকার ১% রিবেট বাবদ দু’কোটি টাকা ফেরত চায় খুলনাবাসী। অন্যথায় ওজোপাডিকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে এ অঞ্চলের সাধারণ নাগরিকদের সাথে নিয়ে দুর্বার গনআন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

oবক্তারা আরও বলেন, সরকারের ‘ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ’ দেয়ার উদ্যোগকে ভেস্তে দেয়ার হীন মানসিকতায় ওজোপাডিকোতে এখন অনেকটা প্রকল্প বাণিজ্য চলছে। একের পর এক প্রকল্প গ্রহণ করা হলেও বিদ্যুৎ গ্রাহকদের কোন কাজে আসছে না, বরং কোম্পানীর হাতে গোনা কিছু কর্মকর্তার পকেট ভারী হচ্ছে। এসব দুর্নীতির বিরুদ্ধে এখনই রুখে না দাড়ালে কোম্পানীর খরচ বাড়তে বাড়তে একদিন তা গ্রাহকদের ওপরই চাপিয়ে দেয়া হবে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর মধ্যদিয়ে।
নাগরিক সংগঠন জনউদ্যোগের উদ্যোগে আজ শনিবার দুপুরে নগরীর বিএমএ’র সেমিনার কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
বিএমএ খুলনার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ডা: শেখ বাহারুল আলমের সভাপতিত্বে এসময় প্রধান আলোচক ছিলেন, তেল-গ্যাস রক্ষা জাতীয় কমিটির অন্যতম নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স।
জনউদ্যোগ খুলনার সদস্য সচিব মহেন্দ্রনাথ সেনের পরিচালনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, খুলনা নাগরিক সমাজের সভাপতি এড. আফম মহসীন, বৃহত্তর আমরা খুলনাবাসীর চেয়ারম্যান শরীফ শফিকুল হামিদ চন্দন, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির নেতা আলহাজ্ব শেখ মহিউদ্দিন ও শাহীন জামাল পন, আওয়ামীলীগ নেতা শাহজাহান পারভেজ, জাসদ নেতা খালিদ হোসেন, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মামুন রেজা, নিরাপদ সড়ক চাই-নিসচা’র জেলা সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সদস্য এসএম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, নাগরিক নেতা মাসুদ মাহমুদ, আ: হালিম, সৈয়দ ইমাম হোসেন বাচ্চু, সেলিম বুলবুল, শরীফুল ইসলাম সেলিম, আইনুল হক, জেসমিন জামান,শাহ লায়েকুজ্জামান, জি এম রাসেল, ইসরাত আরা হীরা, মাহবুবুল আলম বুলবুল, জিয়াউর রহমান স্বাধীন, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক কোষাধ্যক্ষ এইচ এম আলাউদ্দিন, সাংবাদিক ইয়াসিন আরাফাত রুমি প্রমুখ।
বক্তারা ওজোপাডিকোর প্রি-পেইড মিটারের তুঘলকী কারবারসহ ওজোপাডিকোর বিভিন্ন দুর্নীতি-অনিয়ম নিয়ে কথা বলেন। তারা বলেন, ফ্রি প্রি-পেইড মিটার দেয়ার কথা বলে এখন মাসে ৪০ টাকা করে ভাড়া কাটা হলেও তা কতদিন নেয়া হবে তার কোন নিশ্চয়তা নেই। এছাড়া ওজোপাডিকোর এমডি গ্রাহক বান্ধব নয়, উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, তিনি সপ্তাহের পাচদিন থাকেন ঢাকায় আর বন্ধের দু’দিন খুলনায় অবস্থান করেন। এতে গ্রাহকরা যেমন তার সাথে অফিসিয়ালী যোগাযোগ করতে পারেন না তেমনি তিনি সরকারি মোবাইলটিও অধিকাংশ সময় রিসিভ করেন না। খুলনা ও ঢাকায় একাধিক গাড়ি ব্যবহার, বিদেশ ভ্রমণ, ওজোপাডিকোর সদর দপ্তরকে গ্লাস রুমে আবদ্ধ করে রাইফেলধারী আনসার দিয়ে অনেকটা সিংহাসন বানিয়ে রেখেছেন বলেও বক্তারা উল্লেখ করেন।
গ্রাহকরা প্রি-পেইড মিটার নেবে না পোষ্ট পেইড নেবে সেটি গ্রাহকদের নিজস্ব অধিকার উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, ওজোপাডিকোর অনেক কর্মকর্তার বাড়িতে এখনও প্রি-পেইড মিটার না বসানোই প্রমাণ করে যে, এ মিটারে দুর্নীতি আছে। এছাড়া চীন একটি ব্যবসায়িক দেশ উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, তারা কোনক্রমেই চাইবে না যে, বাংলাদেশ ভাল মিটার উৎপাদন করুক। যে কারণে ওজোপাডিকো চীনের সাথে যৌথ মালিকানায় জিরো পয়েন্টের কাছে মৃধা কমপ্লেক্সে যে মিটার তৈরির কারখানা করছে সেটিও আর একটি অর্থ হাতিয়ে নেয়ার কারখানা বলেও বক্তারা উল্লেখ করেন। আবার ওই কোম্পানীর বড় পদটি দখল করে আছেন ওজোপাডিকোর কোম্পানী সচিব।
সব মিলিয়ে ওজোপাডিকোর প্রি-পেইড মিটারসহ নানা দুর্নীতি-অনিয়মের চিত্র ফুটে ওঠে এ মতবিনিময় সভা থেকে।
সভার প্রধান আলোচক রুহিন হোসেন প্রিন্স জানান, সার্বিক বিষয় নিয়ে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন বা বিইআরসিকে চিঠি দেয়া, ভোক্তা অধিকার নিষ্পত্তি সংরক্ষণ কমিটি ও বিইআরসি কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে খুলনায় গণশুনানীসহ প্রয়োজনে আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খুলনাসহ পদ্মার এপারের একুশ জেলার বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অধিকার নিশ্চিত করা হবে। তবে এজন্য খুলনার জনসাধারণকে অংশগ্রহণমূলক এবং ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য তিনি আহবান জানান।
সভার সভাপতি ডা: শেখ বাহারুল আলম এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত মতামত জানতে আগামী সোমবার বেলা ১১টায় বিএমএ মিলনায়তনে পরবর্তী সভা আহবানের কথা উল্লেখ করে ওই সভায় খুলনার বিদ্যুৎ গ্রাহক, নাগরিক নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিদের উপস্থিত থাকার আহবান জানান।