ঐতিহ্যবাহী পাটকেলঘাটা ফুটবল মাঠের বেহাল দশা

0
418

সেলিম হায়দার :
সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী পাটকেলঘাটা ফুটবল মাঠটি বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। অনাদর, অবহেলা আর চোখের জলে দীর্ঘদিন ভাসছে মাঠটি। সাতক্ষীরা জেলার মধ্যে এত বড় জনগুরুত্বপূর্ণ মাঠ বিরল। মাঠটি অনেক ঐতিহাসিক স্বাক্ষর বহন করে চলেছে। দেশ স্বাধীনের পর থেকে একাধিক প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী পরিষদের অনেক সদস্যসহ সকল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দের পদার্পণ ঘটেছে এই মাঠে। পাটকেলঘাটা থানার প্রধান ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় এখানে। এছাড়া বড় ধরণের সভা, সমাবেশ ও নিয়মিত সকল প্রকার খেলাধুলা অনুষ্ঠিত হয় এই মাঠে। অথচ নিত্য প্রয়োজনীয় বিশাল এ মাঠটির যেন এখন অভিভাবক শুন্য। অল্প বৃষ্টি হলেই মাঠটিতে জমে হাটু পানি। আর বর্ষা মৌসুমে থাকে কোমর পানি। যা মাছ চাষ ও বোরো ধান চাষের জন্য উপযোগী হয়ে ওঠে। যার ফলে ক্রীড়ামোদীদের পোহাতে হয় চরম দুর্ভোগ। মাঠের চারপাশের ড্রেনটি স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ময়লা আবর্জনা ফেলে বন্ধ করে ফেলেছে। পানি নিষ্কাশনের জন্য কোন ব্যবস্থা নেই। মাঠটির দেখভাল করার কেউ না থাকার সুযোগে মাঠের পশ্চিম পার্শ্বের বালু ব্যবসায়ী জনৈক হাবিবুর রহমান তার কয়েকটি ব্যবসায়ী ট্রলি ও গোবরের মশাল মাচান রেখে যথেচ্ছা ব্যবহার করে মাঠটি নষ্ট করছে। পূর্ব-উত্তর পার্শ্বে পিযুষ সাধু নামের এক ব্যক্তি তার ভাড়াটিয়া দোকানীদের ও ভাগ্যকুল মিষ্টান্ন ভান্ডারের উচ্ছিষ্ট বর্জ্যে পানি নিষ্কাশনের ড্রেন বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে মাঠটিতে খেলাধুলার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে দীর্ঘদিন।
পাটকেলঘাটা ফুটবল মাঠের নিয়মিত খেলোয়াড় জাফরি সরদার জানান, মাঠটি দীর্ঘদিন পানি জমে কর্দমাক্ত থাকায় অনুশীলন করতে খুবই অসুবিধা হচ্ছে। পানি নিষ্কাশনের দ্রুত ব্যবস্থা ও মাঠ উন্নয়নের পদক্ষেপ কতটুকু নিয়ে স্থানীয় সরুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান বলেন, মাঠের সমস্যা সমাধানে কয়েক দফা চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি। তিনি এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।