এ অঞ্চলের ক্রিকেটপ্রেমী লাখ জনতা আমার অনুপ্রেরণা : শেখ সোহেল

0
998

খুলনা টাইমস প্রতিবেদক :

খুলনাঞ্চলের যুব সমাজকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে সৃষ্টিশীল জাতি গঠনে অগ্রনী ভুমিকা পালন করবে এমন প্রত্যাশা নিয়ে এ অঞ্চলের ক্রীড়াঙ্গণকে ঢেলে সাজানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এজন্য ২০১৮ সালের মধ্যে খুলনাসহ সারাদেশে ক্রিকেট একাডেমি গড়ে তোলা হবে। যার ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে ১০ নভেম্বর খুলনার মাটিতে গড়াতে যাচ্ছে ‘শহীদ শেখ আবু নাসের টি-টোয়েন্টি গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট’।

আজ সকালে খুলনা টাইমস এর সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড পরিচালক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষপুত্র শেখ সোহেল। যে খেলাধুলা ধীরে ধীরে খুলনাঞ্চল থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে, তা পূনরায় খেলার মাঠে ফিরিয়ে আনতে একরাশ স্বপ্নের কথা জানালেন তারুণ্যের প্রতিক শেখ সোহেল। খোলামেলা তুলে ধরলেন সম্ভাবনা ও সমস্যার কথা। স্বাক্ষাৎকারটি গ্রহণ করেন সাংবাদিক আসাদুজ্জামান রিয়াজ ও সুমন আহমেদ।

শেখ সোহেল বলেন, ‘সিলেটের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিপিএল’র জন্য আমাকে অনেক অনেক বেশি দায়িত্ব পালন করতে হয়েছে। এর মধ্যেও ্আমি ‘শহীদ শেখ আবু নাসের টি-টোয়েন্টি গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট’ আয়োজনে রাত জেগে কাজ করেছি। আমি আশা করি খুলনাবাসীকে একটি ভালমানের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট উপহার দিতে পারবো।’ এ জন্য সকলের আন্তরিক সহযোগীতা কামনা করেছেন শেখ সোহেল।

কেমন সাড়া পাচ্ছেন  এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, খুলনাঞ্চল বেশ কিছু তারকা ক্রিকেটার উপহার দিয়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)’র দৃষ্টিও খুলনার দিকে। যে কারণে শুরুতেই ব্যাপক সাড়া। এছাড়া আমি জানি খুলনাবাসী বিষণভাবে ক্রিকেটকে ভালবাসেন। এ অঞ্চলের ক্রিকেটপ্রেমী লাখ জনতা আমার অনুপ্রেরণা।’ তবে বিসিবি এবং খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থা আমার এই উদ্যোগকে আন্তরিকভাবে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি সহযোগীতা করছে।

এ ধরনের টুর্নামেন্ট আয়োজনে আর কোন ইচ্ছা আছে কিনা জানতে চাইলে বিসিবি পরিচালক বলেন, আপাতত এই টুর্নামেন্ট খুলনায় অনুষ্ঠিত হলেও আগামীতে বিভাগীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে। প্রত্যেক বছর এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হবে।
ভালমানের মাঠ ও আন্তর্জাতিকমানের হোটেল নেই। যে কারণে ইচ্ছে থাকা সত্বেও খুলনা আর্ন্তজাতিক টেষ্ট বা অনডে খেলা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। যা প্রতিনিয়ত আমাককে পীড়া দেয়।

তবে এ সমস্যা আর বেশি দিন নয়। আপার সঙ্গে (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) কথা হয়েছে। তিনিই আমাদের শেষ ভরসা। খুলনাবাসীর জন্য আপার হাত সব সময়ে প্রসারিত। ইতোমধ্যে খুলনায় দু’টি ‘পিচ’ তৈরীর অনুমোদন পাওয়া গেছে। খুব শিগ্রই খুলনার মাটিতে একটি আর্ন্তজাতিক টি-টুয়েন্টি অনুষ্ঠিত হবে।
উল্লেখ্য, আগামী ১০ নভেম্বর থেকে খুলনার মাটিতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘শহীদ শেখ আবু নাসের টি-টোয়েন্টি গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট’। এদিকে দীর্ঘ ছয় বছর পর এ ধরনের একটি ক্রিকেট আসরকে কেন্দ্র করে নতুন করে জেগে উঠেছে খুলনাবাসী। নব বধুর ন্যায় বর্ণিল সাজে সেজেসে খুলনা মহানগরী। এখন প্রতিক্ষা মাঠে বল গড়াবার। আয়োজকরা দিনরাত পরিশ্রম করছেন।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে (বিসিবি) পরিচালক শেখ সোহেলের পৃষ্ঠপোষকতায় শহীদ শেখ আবু নাসের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আয়োজনে আছে খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থা।
প্রতিযোগিতায় খুলনা সিনিয়র ডিভিশনের ১৬টি দল ৪টি গ্রুপে অংশ গ্রহণ করবে। এছাড়া এ টুর্নামেন্টকে সফল করার লক্ষ্যে আগামীকাল ৯ নভেম্বর বেলা ১১টায় সার্কিট হাউস মাঠ থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও একই দিন বিকেলে শিববাড়ি মোড়ে টুর্নামেন্টের ট্রফি উম্মোচন ও ১৬ দলের জার্সি উম্মোচন করা হবে। ট্রফি ও লোগো উম্মোচন শেষে জমকালো কনসার্ট অনুষ্ঠিহ হবে।
টুর্নামেন্টের ‘ক’ গ্রুপে খেলবে পঞ্চবীথি ক্রীড়া চক্র, কপিলমুনি ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (কেকেএসপি), দৌলতপুর ক্রীড়া চক্র ও কাশিপুর ক্রিকেট একাডেমী। ‘খ’ গ্রুপে রয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব,রেড সান ক্লাব, এ্যালফাবেট স্পোর্টিং ক্লাব ও ইয়ং জনতা ক্রীড়া চক্র। ‘গ’ গ্রুপে খেলবে বয়রা তরুণ সংঘ, খালিশপুর ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংসদ, একতা বয়েজ ক্লাব ও আলমগীর মেমোরিয়াল। আর ‘ঘ’ গ্রুপে চারটি দল হচ্ছে নিরালা ইউনাইটেড ক্লাব, খুলনা আবাহনী ক্রীড়া চক্র, আবুল কাশেম স্মৃতি সংসদ ও ন্যাশনাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন।