এল ক্লাসিকোতে রিয়াল-বার্সার কেউ জিততে পারলো না

0
229

খুলনাটাইমস স্পোর্টস : মৌসুমের প্রথম এল ক্লাসিকোতে শেষ পর্যন্ত রিয়াল মাদ্রিদ-বার্সেলোনার মধ্যে কোন দলই শেষ হাসি হাসতে পারেনি। ক্যাম্প ন্যুতে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে গোল শুন্য ড্র নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো দুই দরকে। ১৭ বছর পর এল ক্লাসিকোতে এমন ড্র দেখলো ফুটবল বিশ্ব। ২০০২ সালে সর্বশেষ এল ক্লাসিকোর ম্যাচ গোল শূন্য ড্র হয়েছিল। গত ৩০ বছরে এটা দ্বিতীয় গোলশুন্য ড্রয়ের ঘটনা। এল ক্লাসিকো মানেই টান টান উত্তেজনা, তবে মাঠের এই লড়াইকে ছাপিয়ে কাল মাঠের বাইরেও দেখা গিয়েছিল চরম উত্তেজনা। স্টেডিয়ামের বাইরে কাতালান স্বাধানীতা বিরোধীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষে ম্যাচকে ঘিড়ে বাড়তি উত্তেজনা বিরাজ করেছে। অক্টোবরে পূর্ব নির্ধারিত সূচীতে এই কারণেই ম্যাচটি স্থগিত করা হয়েছিল। স্প্যানিশ ঘরোয়া লিগের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের নতুন সময়সূচী যখন নির্ধারণ করা হয় তখনো রাজনৈতিক অস্থিরতার বিষয়টি সামনে চলে এসেছিল। যাই হোক সব মিলিয়ে শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি ভালভাবেই শেষ হয়েছে, এতেই সন্তুষ্টি জানিয়েছে স্প্যানিশ ফেডারেশন। মাঠের বাইরে ব্যপক সংঘর্ষ চললেও ক্যাম্প ন্যুর ভিতরে ম্যাচটি নিরবিচ্ছিন্ন ভাবেই শেষ হয়েছে। পুরো ম্যাচে অবশ্য রিয়াল মাদ্রিদের কাউন্টার এ্যাটাক সামাল দিতেই ব্যস্ত ছিল বার্সার রক্ষণভাগ। স্বাগতিক গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে টার স্টেগানকেও এক্ষেত্রে ধন্যবাদ দিতেই হয়। বেশ কয়েকটি আক্রমণকে রুখে দিয়ে রিয়ালের আক্রমণভাগকে হতাশ করে তুলেছিলেন টার স্টেগান। ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ আর্নেস্টো ভালভার্দে বলেছেন, ‘এমতিনেই এল ক্লাসিকো ঘিড়ে বাড়তি একটি টেনশন থাকে। তার উপর মাঠের বাইরের ঘটনা কিছুটা হলেতো প্রভাব ফেলেছেই। তারপরেও আমরা স্বাভাবিক খেলা উপহার দেবার চেষ্টা করেছি।’ রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান বলেন, ‘মাঠে আসা সমর্থকরা সব সময়ই আমাদের কাছে ভাল ফুটবল খেলা দেখতে চায়। সেদিক থেকে বলতে গেলে আমরা দারুণ খুশী।’ ম্যাচটি যদিও প্রত্যাশা পূরনে ব্যর্থ হয়েছে। রিয়াল কিংবা বার্সেলোনা কোন দলই তাদের সেরাটা দিতে পারেনি। বিশেষ করে গোল দিতে না পারাট দুই দলের জন্যই ছিল সমান হতাশার। সে কারণেই জয় না হোক অন্তত পরাজয় তো বরণ করতে হয়নি কোন দলকে, এই স্বস্তি নিয়েই খেলোয়াড়রা মাঠ ছেড়েছে। গোলশূন্য ড্র হবার অর্থ হচ্ছে লা লিগা টেবিলের শীর্ষস্থানটি ধরে রাখলো বার্সেলোনা। ১৭ ম্যাচ শেষে সমান ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে শীর্ষেই থাকলো বার্সা। এই ম্যাচে রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও রামোস ক্লাসিকোতে সর্বোচ্চ ৪৩টি ম্যাচ খেলার অনন্য এক রেকর্ড গড়েছেন। প্রথমার্ধের প্রায় পুরোটাই ছিল রিয়ালের আধিপত্যে ভরা। ১৭ মিনিটে বার্সার পোস্টের সামনে দারুণ এক হেড নিয়েছিলেন ক্যাসেমিরো। কিন্তু একেবারে লাইনের উপর থেকে তা ক্লিয়ার করেন পিকে। এরপর গ্যারেথ বেল ও করিম বেনজেমা মিলে বেশ কয়েকটি আক্রমণ চালিয়েও সফল হতে পারেননি। ৩১ মিনিটে প্রথমবারের মত মেসি কিছুটা সরব হয়ে উঠেন। জোর্দি আলবার ক্রস থেকে জোড়ালো শট নিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন এই সুপারস্টার। তবে এ যাত্রা রিয়ালকে রক্ষা করেন রামোস। রিয়ালের তরুন মিডফিল্ডার সানটিয়াগো ভালভার্দের শক্তিশালী শট টার স্টেগান রুখে দেন। ৪১ মিনিটে ম্যাচের সবচেয়ে সহজ সুযোগ নষ্ট করে বার্সেলোনা। মেসির পাসে রিয়াল গোলরক্ষক থিবাট কুর্তোয়াকে একা পেয়েও পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন আলবা। দ্বিতীয়ার্ধে মেসি ও লুইস সুয়ারেজ নিজেদের সুযোগগুলো কাজে লাগালে বার্সেলোনা হয়ত এগিয়ে যেতে পারতো। ম্যাচ শেষের ১৫ মিনিট আগে বেল গোল করলেও বলটির যোগনদাতা ফারলান্ড মেন্ডির অফ-সাইডের কারনে তা বাতিল হয়ে যায়।