একযোগে, দুর্দান্ত গতিতে জার্মানি আক্রমণ করে

0
519

আব্দুস সালাম মুর্শেদী :

বিশ্বকাপে আজ দুটি বড় ম্যাচ। ব্রাজিল নামছে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে।আর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জার্মানি খেলবে মেক্সিকোর সঙ্গে। ফুটবল প্রেমীদের আজ রাত জাগার দিন। আমিও তাদের দলে। ম্যাচ দুটি দেখার জন্য অধীর হয়ে আছি।

আমাদের দেশে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার ভক্তই সিংহ ভাগ। গতকাল আর্জেন্টিনা ভক্তরা কষ্ট পেযেছে। আইসল্যান্ডের মতো নবাগত দলের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে। কিন্তু যেভাবে শুরু করেছিল এবং সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারলে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে পারত তারা। মেসির পেনাল্টি মিস বাদ দিয়েও আরো একটি গোল পাওয়া উচিৎ ছিল তাদের। বিশ্বকাপে যারা খেলতে এসেছে তারা সবাই শক্তিশালী দল। দলগুলোর মধ্যে শক্তি সামর্থের পার্থক্য সামান্য। কাউকে আন্ডারস্টিমেট করার উপায় নেই। আর্জেন্টিনা সেটা করেওনি। আসলে আইসল্যান্ডের কৌশল ভালো কাজ করেছে। তারা জানত তাদের চেয়ে আর্জেন্টিনা এগিয়ে। তাই তারা ডিফেন্সসিভ খেলেছে। গোল খাওয়া থেকে সেফ থাকতে চেয়েছে। আর সুযোগ বুঝে আাক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করেছে। মেসির পেনাল্টি মিস নিয়ে অনেক হতাশ্,া কথাবার্তা হচ্ছে। আমি বলব, ফুটবলে এটা হরহেমেশাই হয়। অনেক বড় বড় ফুটবলাররাও পেনাল্টি মিস করেছেন।

সৌদি আরবকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া যা প্রত্যাশিত ছিল না মোটেও। মিশরের বিপক্ষে অনেক কষ্ট করে জিতেছে শক্তিশালী উরুগুয়ে। স্পেন-পর্তুগাল ম্যাচ বেশ টাইট হয়েছে। অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে গলদঘর্ম অবস্থা হয়েছে ফ্রান্সের। এরপর আইসল্যান্ডের সঙ্গে আর্জেন্টিনার ড্র। অথচ আর্জেন্টিনা দলে একঝাক তারকা। বিশ্বের নামি লিগগুলোতে খেলে বেড়ান তারা। আইসল্যান্ডের খেলোয়াড়দের কে চিনে? আমি মনে করি এই ফলগুলো হচ্ছে এক একটি সতর্কতা, শিক্ষনীয় বিষয়।

ব্রাজিল জার্মানির জন্য ভালো বিষয় হলো, তারা একটু পরে মাঠে নামছে। এই ফলগুলো থেকে শিক্ষা নেওয়ার সুযোগ পেয়েছে। নিশ্চই তারা মাঠে সতর্ক হয়ে খেলবে। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ব্রাজিল নিশ্চয়ই এগিয়ে। নেইমার ছাড়াও ম্যাচ জেতানোর মতো বেশ কয়েকজন তারকা আছে দলে। জেসাস ও কুটিনহো অনেক কিছু করে দেখাতে পারেন। সাম্প্রতিক বছরগুলোর মধ্যে ব্রাজিল এখন সবচেয়ে শক্তিশালী দল। রাশিয়ায় আসার আগে দুটি ম্যাচ জিতে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নিয়েছে।

তবে সুইজারল্যান্ডও শক্ত দল। ওদের ছোট ভাবার সুযোগ একদমই নেই।ফুটবলের দেশ সুইজারল্যান্ড। ফিফার সদর দফতার সেখানে। দেশ ছোট হতে পারে, ফুটবলে তারা বরাবরই শক্তিশালী দল। কদিন আগে শক্তিশালী জার্মানিকে হারিয়েছে।আমি ব্রাজিলকে এগিয়ে রাখব, তবে ভালো লড়াই হবে।

ভালো লড়াই হতে পারে জার্মানি মেক্সিকো ম্যাচেও। মেক্সিকো দলে তেমন দামি তারকা হয়তো নেই, কিন্তু জানপ্রাণ দিয়ে খেলে পুরো দলটা। যে কোনো দলের জন্যই মেক্সিকোকে হারানো কঠিন। বিশ্বকাপে এর আগে দুটি কোয়ার্টার ফাইনালও খেলেছে। কনকাকাপে তাদের অসাধারণ রেকর্ড।

তবে জার্মানি অনেক গোছানো ফুটবল খেলে। ওরা যে কৌশলে খেলে তাতে ওদের বিপক্ষে গোল দেওয়া কঠিন। আঁটসাঁট রক্ষণভাগ। আর আক্রমণে গেলে সেটা একযোগে, জোরালোভাবে এবং দুর্দান্ত গতিতে। প্রতিপক্ষ দলের জন্য যা স্মাাল দেওয়া খুবই কঠিন কাজ।

ন্যয়ারের মতো গোল কিপার আছে তাদের। মিডফিল্ডে খেদিরা, রুডি, ওজিলা আছেন। অনেকেই বলেন জার্মানির আক্রমণের ধার আগের মতো নেই। হ্যাঁ, হয়তো নেই। তবে এখনও গোমেজ, রেউস, মুলারের মতো স্ট্রাইকাররা আছেন। সব মিলিয়ে আমি জার্মানিকে এগিয়ে রাখছি।

আব্দুস সালাম মুর্শেদী : সাবেক ফুটবল তারকা