ঈদে খুলনাবাসীকে তিন ধাপে বাড়তি নিরাপত্তা দেবে পুলিশ – রেঞ্জ ডিআইজি

0
534
????????????????????????????????????

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা:
খুলনায় ঈদের পূর্বে, ঈদের দিন ও ঈদের পরে তিন ধাপে বাড়তি নিরাপত্তা দেবে পুলিশ। এসময় নিয়মিত টহলের পাশাপাশি পুলিশের মোবাইল ও ফুট পেট্রোল টিম মাঠে থাকবে। বিপনী বিতান, শপিংমল, বাজার এলাকার যানজট নিরসনে অতিরিক্ত ট্রাফিক ফোর্স মোতায়েন করা হবে। ঈদের জামায়াতের নিরাপত্তায় আর্চওয়াচ স্থাপন, হ্যান্ড মেটাল ডিটেক্টর ও দেহ তল্লাশীর ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া খুলনাবাসীর নিরাপত্তার স্বার্থে খুলনা রেঞ্জের বেশির ভাগ পুলিশের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।
গতকাল রবিবার খুলনায় ঈদে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় খুলনা রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি ড. খন্দকার মহিদ উদ্দিন এসব কথা বলেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মহা সড়কে দুর্ঘটনার একটি বড় কারণ এসব যানবাহন। তাই ঈদের পর যে কোনো মূল্যে অন্তত খুলনা রেঞ্জের মধ্যের মহাসড়কে এসব ছোট যান চলাচলের ক্ষেত্রে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়টি রেঞ্জের সব পুলিশ সুপারকেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।গত ১০ এপ্রিল খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি হিসেবে যোগ দেন মহিদ উদ্দিন। এরপর এটাই তার প্রথম সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়। মাদক ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন। এক্ষেত্রে সাংবাদিকসহ খুলনাবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
ঈদের সময় মানুষের নিরাপত্তার বিষয়ে ডিআইজি বলেন, ঈদের সময় মানুষের যাতায়াত, কেনাকাটাসহ অন্যান্য অনেক কিছু বেড়ে যায়। আর দুর্বৃত্তরা ওই সুযোগটি নেওয়ার চেষ্টা করে। তবে এবার মানুষের চলাচল নিবিঘ্ন করতে খুলনা রেঞ্জের পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। প্রতিটি মার্কেটে পুলিশি নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। সড়কে অধিকসংখ্যক টহল পুলিশ নিয়োজিত করা হচ্ছে। তাছাড়া প্রতিটি বাসস্ট্যান্ডে ভিডিও ক্যামেরা পাঠানো হবে। প্রতিটি গাড়ির ফিটনেস সনদ ও চালকদের লাইসেন্স পরীক্ষা করা হবে।
তিনি আরও বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে আসন্ন ঈদের পরেই খুলনা বিভাগের মধ্যে থাকা মহাসড়কে ইজিবাইক, মাহেন্দ্র, নসিমন ও করিমন চলাচলের ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রতিটি থানা ও জেলা পুলিশ সুপারের কাযালয়সহ ডিআইজি কার্যালয়কে সাধারণ মানুষের সহজ প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার কথা জানান নতুন ওই ডিআইজি। মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমান, নাহিদুল ইসলামসহ রেঞ্জ ডিআইজি অফিসের ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।