আশাশুনি-পারুলিয়া সড়কে কার্লভাট ভেঙে যাওয়ায় যানবাহন চলাচল বন্ধ

0
208

মইনুল ইসলাম, আশাশুনি প্রতিনিধিঃ

আশাশুনি টু পারুলিয়া সড়কের কামালকাটি বাজারের কাছে কালভার্ট ভেঙ্গে যাওয়ায় যানবাহন ও পথচারী চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মানুষের ভোগান্তি চরম আকার ধারন করেছে। আশাশুনি জিসি টু পারুলিয়া জিসি সড়কের আশাশুনি অংশে শোভনালী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন কামালকাটি বাজারে বৃহৎ কালভার্ট অবস্থিত। সড়কের চেইনেজ ১১৭০০.০০ মিটারে কালভার্টটি অবস্থিত। সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কালিগঞ্জ, দেবহাটা, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার সাথে আশাশুনি উপজেলা এবং পাশ্ববর্তী পাইকগাছা, কয়রাসহ বিভিন্ন উপজেলার সংযোগ সড়ক এটি। এই সড়কে প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে থাকে। মালামাল পরিবহণসহ বিভিন্ন কাজে সড়কটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। পানি উন্নয়ন বোর্ড কালভার্টের নিচ দিয়ে প্রবাহিত নদী খনন কাজ করাচ্ছে। কয়েকদিন আগে কোন রকম প্রোটেকশান ব্যবস্থা ছাড়াই তারা খাল/নদী খননের কাজ করে। ফলে ব্রীজের এ্যাপ্রোচ বসে গেছে এবং ব্রীজের পূর্ব পার্শে ৩ ফুট বসে গেছে এবং ব্রীজের উইং ওয়াল ভেঙ্গে গেছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড সংশ্লিষ্ট এলজিইডিকে অবহিত না করেই কাজ করেছে। এধরনের অনুমতি না নেওয়ার ঘটনা ইতিপূর্বে অনেক স্থানে ঘটলেও তাদের বিরুদ্ধে কোন রূপ ব্যবস্থা না নেওয়ায় ঘটনার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে বলে সচেতনমহল জানিয়েছেন। এছাড়া, বুধহাটা ইউনিয়নে ব্লুগোল্ড একই ভাবে এলজিইডির অনুমতি ছাড়াই সড়ক কেটে কালভার্ট নির্মান করেছিল এবং এলাকার মানুষ ভীষণ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। সেখানেই কোন প্রতিকার হয়নি বলে তারা অভিমত ব্যক্ত করেন। বর্তমানে সরকারের লাখ লাখ টাকার ক্ষতি করলো এবং জনভোগান্তির সৃষ্টি করলো। তাদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেওয়া হবে? জনভোগান্তির অবসান কবে নাগাদ হবে? এমন হতাশা জনক প্রশ্ন উত্থাপন করে তারা অবিলম্বে প্রশাসন, সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ জন প্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপ কামানা করেছেন। এব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী আক্তার হোসেন জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ড এলজিইডিকে অবহিত না করে, কোনরকম প্রটেকশান ব্যবস্থা না করে, খাল খননের সময় এ্যাপ্রোচ বসে গেছে, ব্রীজের উইং ওয়াল ভেঙ্গে গেছে। এব্যাপারে জরুরী ভিত্তিকে ব্রীজের উক্ত অংশ মেরামত করে যোগাযোগ ব্যবস্থা সচল করার প্রয়োজনীয় ব্যব্স্থা গ্রহনের জন্য নির্বাহী প্রকৌশলী মহোদয়কে অনুরোধ জানিয়ে পত্র প্রেরন করা হয়েছে।