আশাশুনির ভাঙ্গণকৃত বেড়ীবাঁধ পরিদর্শন করলেন ইউএনও

0
364

আশাশুনি প্রতিনিধি:
আশাশুনি উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নের বিছটে ভাঙ্গণকৃত বেড়ীবাঁধ পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাফ্ফারা তাসনীন। গত শুক্রবার দুপুরে প্লাবিত এলাকার দুঃখ দূর্দশার কথা চিন্তা করে ঘটনাস্থলে পৌছে তিনি প্লাবিত এলাকার সহায় সম্বলহীন, আশ্রায়হীন ও স্বাভাবিক খাদ্য হারা মানুষের পাশে দাঁড়ান। তিনি অসহায় পরিবার গুলোর উদ্দেশ্যে বলেন, আমি সহ স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের এবং সর্বপরি জেলা প্রশাসন আপনাদের পাশে আছে এবং থাকবে ইনশাল্লাহ। আপনারা হয়ত প্রাকৃতিকভাবে ক্ষকিগ্রস্ত হয়েছেন। কিন্তু সাহস মনে ও বুকে সাহস রাখুন স্থায়ী একটা সমাধান হবেই হবে, আমরা সে জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনান্তে একটি সুন্দর ও শাবলিল স্থায়ী প্রকল্প পাশ করার জন্য আশ্বাস প্রদান করেন। ইউএনও মাফ্ফারা তাসনীন তাৎক্ষনিকভাবে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের নির্দেশে জিআর ৭ মেট্রিকটন চাউল এবং জেলা প্রশাসক ও তার পতিœর নিজস্ব তহবিল থেকে নগদে ২০ হাজার টাকা ইউপি চেয়াম্যানের হাতে তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন, জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুল হাকিম, আশাশুনি প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম এহসান হাবিব, ইউপি সদস্য শওকত হোসেন সহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও অর্ধশতাধিক বসতভিটা হারানো পরিবারের সদস্যরা। প্রসঙ্গতঃ গত বৃহস্পতিবার দুপুরে খোলপেটুয়া নদীর প্রবল জোয়ারের তোড়ে পাউবো’র বেঁড়িবাধ ভেঙ্গে বিছট গ্রামসহ এর আশপাশের ছয় পাড়া প্লাবিত হয়। তলিয়ে যায় শতাধিক মৎস্য ঘের, পানি বন্দী হয়ে পড়েছিল প্রায় শতাধিক পরিবার। সাতক্ষীরা পাউবো বিভাগ-২ এর আওতাধীন ৭/২ নং পোল্ডারে বিছট গ্রামের মজিদ সরদার বাড়ির সামনে হতে মোড়লবাড়ী পর্যন্ত গ্রায় দেড়’শ ফুট এলাকা বেঁড়িবাধ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন স্থানীয় লোকজন নিয়ে দ্রæত বেড়িবাঁধটি পরবর্তী জোয়ারের পূর্বেই বসতভীটা ছাড়া বিভিন্ন বাড়ীর ভিটা কেটে জিও ব্যাগ ও পাইলিং করে বেঁধে ফেলেন।