আশাশুনির ফার্মেসী রাত্রে বন্ধ থাকায় ভোগান্তি চরমে

0
345

মইনুল ইসলাম, আশাশুনি:
আশাশুনি সদরের ফার্মেসীগুলো রাতের বেলায় বন্ধ থাকায় হাসপাতালের ও স্থানীয় জরুরী রোগীরা চরম বিপাকে পড়ছেন। বাধ্য হয়ে রোগিদেরকে দুরবর্তী ক্লিনিকে চিকিৎসা সেবা নিতে হচ্ছে। শহরসহ বিভিন্ন মোকামে কোন না কোন ফার্মেসীতে রাতের বেলায় লোক থাকে। গভীর রাত কিংবা রাতের যেকোন সময় জরুরী ঔষধ পেতে সেসব স্থানে সমস্যা সৃষ্টি হয়না। কিন্তু আশাশুনি উপজেলা সদরে ৯টি ফার্মেসী রয়েছে। এসব ফার্মেসীগুলো রাত্র ৯/১০ টার মধ্যে বন্ধ হয়ে যায়। রাতের বেলা কোন ফার্মেসী থেকে ঔষধ পাওয়া যায়না। আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রাতের বেলায় কোন জরুরী রোগি ভর্তি হলে তখন ঔষধের অভাবে রোগির স্বজনদের ছোটাছুটি করতে দেখা যায়। ঔষধ পেতে প্রভাবশালী কিংবা অনেকে ফার্মেসী মালিকদের সাথে যোগাযোগ করেও সময় মত ঔষধ নিতে পারেনা। পল্লী চিকিৎসক ডাঃ একে রায় বলেন, রাত্রে আমাদের কাছে রোগি আসলে তাদেরকে ঔষধের ব্যবস্থা না করতে পারার কারনে সকালে আসতে বলতে হয়। উপজেলা সদরে সময়মত ঔষধ পাওয়া নিশ্চত হওয়া প্রয়োজন। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ সামাদ বাচ্চু জানান, হাসপাতালে রোগি ভর্তির পর রাতের বেলায় ঔষধ পেতে যে ভোগান্তি পেয়েছি তা বলার নেই। ফার্মেসী মালিক সমিতির সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি বলেন, ৯টি দোকানের ৮ জনের বাসা দূরে হওয়ায় তারা কেউ রাতে দোকানে থাকতে পারেননা। আমি একাই বাধ্য হয়ে ডাক পেলে দোকানে এসে ঔষধ দেওয়ার কাজ করি।