আরেকটি হতাশার দিন, ব্যাটসম্যানদের ‘যাওয়া-আসা’ থামবে কবে?

0
281

স্পোর্টস ডেস্কঃ

বাংলাদেশর হয়ে আশা দেখাচ্ছিলেন একমাত্র তামিম ইকবাল নিজেদের প্রথম ইনিংসে ১৪৯ রানেই অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের তামিম ইকবাল সর্বোচ্চ ৪৭ রানের ইনিংস খেলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হোল্ডার নেন ৫ উইকেট। ২০৫ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

প্রথম টেস্টে লজ্জার পর দ্বিতীয় টেস্টে ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ…।

সাকিব-তামিমদের কাছে এমন প্রত্যাশা করাটাই ‘ভুল’ হলো কি না, সে হিসাব আপাতত তোলা রইল। কিন্তু সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা যাওয়া-আসার ধারাটা যে অব্যাহত রাখলেন, সেটাকে কী বলবেন? প্রশ্ন উঠতেই পারে, ব্যাটসম্যানদের ‘যাওয়া-আসা’ থামবে কবে? ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে নিজেদের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ ওয়ানডেটাও খেলতে পারল না! ৪৬ দশমিক ১ ওভারে ১৪৯ রানেই গুঁড়িয়ে গেল সাকিবদের ব্যাটিং লাইনআপ।

দিনের শুরুটা ভালোই করেছিল বাংলাদেশ। তবে সেটা বোলিংয়ের কল্যাণে। নির্দিষ্ট করে বললে মিরাজের ৫ উইকেট শিকার ছিল উদ্‌যাপনের একমাত্র উপলক্ষ। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩৫৪ রানে অলআউট করার পর ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। কিন্তু এবারও যেন সিরিজের প্রথম টেস্টের ধারা অব্যাহত রাখলেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। তবে এবার কোনোমতে স্কোর ১০০ ছাড়িয়েছে। ১০৫ বলে তামিম ইকবালের ৪৭ আর ৫৩ বলে সাকিবের ৩২ রান না হলে ১৪৯ হতো কি না সন্দেহ।

দলীয় ২০ রানের মাথায় ওপেনার লিটন দাশকে হারায় বাংলাদেশ। লিটন ১২ রান করেই ফিরে যান। বাংলাদেশের টেস্ট স্পেশালিস্ট মুমিনুল হক ২ বল খেলেন। তবে কোনো রান না করেই আউট হন। সাকিব ক্রিজে এসে নির্ভার হয়ে খেলার চেষ্টা করেন। তবে ইনিংস বড় করতে পারেননি। সাকিব আউট হলে আরেক আস্থার প্রতীক মাহমুদউল্লাহও মুমিনুলের মতো ২ বল খেলে শূন্য রানে আউট হন। মাহমুদউল্লাহর পর তামিম ইকবালও আউট হন। মুশফিক খানিকটা ধরে খেলার চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনিও ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে ব্যক্তিগত ২৪ রানে আউট হন। মুশফিকের আগে নুরুল হাসান নেমেই আউট হয়ে ফেরেন। দলীয় ১২৮ রানের মাথায় মুশফিক আউট হলে টেলএন্ডাররা কিছু করতে পারেননি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হোল্ডার ৫ উইকেট তুলে নেন। ২টি করে উইকেট নেন গ্যাব্রিয়েল ও পল। ২০৫ রানে এগিয়ে থেকে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

১৯ রানে এক উইকেট হারিয়ে ২২৪ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ব্রেথওয়েটের উইকেট শিকার করেন সাকিব আল হাসান।