আমার স্বামীকে তুলে নিয়েছে পুলিশ : সংবাদ সম্মেলনে স্ত্রী

0
386

সেলিম হায়দার, সাতক্ষীরা:
আমার মুদি দোকানী স্বামীকে তুলে নিয়ে গেছে সাদা পোশাকধারী পুলিশ। তারা পরিচয় দিয়েছিল আমরা পুলিশ। অথচ সেই পুলিশই বলছে এ ব্যাপারে তাদের কিছুই জানা নেই। আমার স্বামী তাহলে কোথায় আছেন, কার কাছে আছেন আমি জানতে চাই।
এই আকুতি জানিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন সাতক্ষীরার আলিপুর ইউনিয়নের আলিপুর গ্রামের গৃহবধূ সেলিনা খাতুন। তিনি বলেন আমার স্বামী আব্বাস আলি আইনের দৃষ্টিতে কোনো অপরাধ করে থাকলে তার বিচার হোক। কিন্তু তিনি কোথায় আছেন তা আমাকে বলতে হবে।
সেলিনা খাতুন বলেন, আমার স্বামী একজন মুৃদি দোকানী। তিনি কোনো রাজনীতি দলদারি করেন না। তার নামে কোনো মামলাও নেই। তিনি বাড়ির সাথে লাগোয়া মুদি দোকানে থাকেন সারাদিন। তার কোনো দোষ নেই। তাকে ফিরিয়ে দিন।
সেলিনা খাতুন বলেন ১৩ নভেম্বর সন্ধ্যায় সাদা পোশাকধারী পাঁচজন পুলিশ তার দোকানের সামনে এসে জানতে চায় সিগারেট আছে। জবাব দিতে না দিতেই তার দুই বাহু ধরে রাখে পুলিশ। পরে হ্যান্ডকাফ পরায়। এ অবস্থায় কিছু বুঝে উঠবার আগেই তাকে মোটর সাইকেলের পেছনে বসিয়ে চলে যায় পুলিশ। তাদের কাছে ওয়ারলেস সেটও ছিল বলে জানান তিনি।
সেলিনা জানান তিনি ও তার ভাই সাতক্ষীরা থানা ও ডিবি পুলিশে খোঁজ নিয়েছেন। তারা বলেছেন, আব্বাস নামের কাউকে আমরা গ্রেফতার করিনি। এরপর সাতক্ষীরা থানায় একটি জিডি করেছি। জিডি নম্বর-৯৪৪।
কান্নাজড়িত কন্ঠে সেলিনা বলেন,আমার স্বামীর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ থাকলে তাকে আইনে সোপর্দ করে বিচারের আওতায় আনা হোক। কিন্তু স্বামীর হদিস জানতে চাই। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত চিলেন সেলিনার ভাই মো.জাহাঙ্গির।
সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মারুফ আহমেদ বলেন,তুলে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি আমরা শুনেছি। তবে তার বিষয়ে যতদুর জেনেছি কিছুদিন আগে জেল থেকে জামিনে ছাড়া পেয়েছে। বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় তার খোজখবর নেওয়ার জন্য ম্যাসেজ পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে সদর থানায় একটি জিডি হয়েছে।