আমরা যেকোনও সময় ঘুরে দাঁড়াতে পারি: মাশরাফি

0
358
মাশরাফি, বাংলাদেশ, Mashrafe, Banladesh, rtvonline

স্পোর্টস ডেস্কঃ

মাশরাফি বিন মুর্তজা নামটিতে কী আছে? যে কিনা ওয়েস্ট ইন্ডিজে পা ছোঁয়ানোর সাথেই বদলে গেলো বাংলাদেশ দল। এ নিশ্চয়ই কোনও জাদু-মন্ত্র নয়!

প্রায় পাঁচ মাস ধরে খেলেননি আন্তর্জাতিক ম্যাচ। তবে এমন কিছু করে দেখালেন যেন নিয়মিত ম্যাচ খেলেই তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলতে নেমেছেন।

১০ ওভার বোলিং করে দিয়েছেন মাত্র ৩৭ রান। তার ভেতর আবার ১ ওভার মেডেন। নিয়েছেন ৪ উইকেট। অর্ধেক ওভার করেছেন পূর্ণ রান আপ নিয়ে। বাকি পাঁচ ওভার স্বল্প রান আপ নিয়ে। তাতেই কিনা কুপোকাত ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

সফরের শুরুতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে লজ্জার হার। হতাশায় ডুবে থাকা একটা দল। হার ছাড়া আর কী-এই বা দেখার আছে!

ওয়ানডে ম্যাচের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে জিতে ঘুরে দাঁড়ানোর মিশন শুরু। প্রায় চল্লিশ ঘণ্টার ভ্রমণ ক্লান্তি কাটিয়ে ওঠার আগেই গা গরমের ম্যাচে ওয়ানডে অধিনায়ক নেমে গেলেন লাল-সবুজের জার্সিতে।

এটা কি বাড়তি প্রেরণা নয় বাকিদের জন্য! সেই ম্যাচে ব্যাটিং-বোলিং করেননি কিন্তু মাঠে, মাঠের বাইরে থেকে সাহস জুগিয়েছেন সবাইকে।

টেস্ট হারের ক্ষত ভুলতে মাশরাফির অনুরোধ প্রথম ওয়ানডের টসের সময়। ধারাভাষ্যকার ডেনি মরিসনকে মাশরাফি বলেছিলেন, দেখ- আমরা কি করি।

যেমন কথা তেমন কাজ। ম্যাচ শেষে হাসিটা বাংলাদেশেরই। শেষরাতে প্রশান্তির ছোঁয়া নিয়ে ঘুমটা ভালোই হয়েছে নিশ্চয় ১৫ হাজার কিলোমিটার দূরে থাকা টাইগার ভক্তদের।

দেশ আর দেশের মানুষদের জন্যই তো মাশরাফি-সাকিবদের এতো পরিশ্রম। দিনশেষে জয় পেয়েও মাশরাফিরা ঠিকই মনে রাখেন দেশের মানুষদের কথা।

নিজের ফেসবুক পেইজে মাশরাফি নিজেও শেয়ার করেন নিজেদের ফিরে পাওয়ার মুহূর্তটা। ধন্যবাদ জানান দলের খারাপ সময়ে পাশে থাকা ভক্তদের, সতীর্থদের।
“ওয়েস্ট ইন্ডিজে আমাদের সময়টা ভালো যাচ্ছিল না। টেস্ট সিরিজ হারার পর সবাই মানসিকভাবে ভালো ছিল না। কিন্তু সবার মনে এই বিশ্বাস ছিল যে, আমাদের ভালো খেলার সামর্থ্য আছে। আমরা যেকোনও সময় ঘুরে দাঁড়াতে পারি। আমাদের দিনে আমরা যেকোনও কিছু করার সামর্থ্য রাখি। ওয়েস্ট ইন্ডিজে প্রথম ওয়ানডেতে আমরা নিজেদেরকে ফিরে পেয়েছি। আমি আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই, আমাদের দলের সবাইকে এবং সকল সমর্থকদের; যারা সবসময় আমাদের পাশে থেকেছে।”