আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ডুয়েটের সাফল্য

0
417

অনলাইন ডেস্ক, খুলনাটাইমস:

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে রোবটিক্স প্রতিযোগিতায় দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ চোখে পড়ার মতো। স্বপ্নবাজ তরুণদের অভাবনীয় সৃজনশীল উদ্ভাবন তাক লাগিয়ে দিচ্ছে পুরো বিশ্বকে। বিশ্বের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে তরুণরা মেলে ধরেছে নিজেদের সবটুকু উজাড় করে। সৃষ্টির নেশায় ছুটে চলছে দুর্বার গতিতে। ফলে সাফল্য ধরা দিচ্ছে হাতের মুঠোয়। দু’দশকের মতো এবারও ভারতের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি-কানপুরে (আইআইটিকে) অনুষ্ঠিত হয়ে গেল দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম টেকনিক্যাল ফেস্টিভ্যাল ‘টেককৃতি-২০১৮’। আঞ্চলিক পর্ব পেরিয়ে এই প্রতিযোগিতায় দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মোট ৭টি ইভেন্টে ৭টি টিম অংশগ্রহণ করে। তবে আন্তর্জাতিক অটোনোমাস রোবটিক্স চ্যালেঞ্জ (আইএআরসি) রাউন্ডে দেশের হয়ে একমাত্র ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ডুয়েট) কম্পিউটার প্রকৌশল (সিএসই) বিভাগের টিম ‘ডুয়েট রোবো জিব্যাক’ সেকেন্ড রানার্স আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। এই দলের সদস্যরা হলেন- পুনম চৌধুরী শুভ, লতিফুর রহমান লিমন ও রেজাউল করিম রেজা। তাদের বানানো রোবট অন্য দলগুলোর রোবটের সঙ্গে লড়ে এই স্থান অর্জন করে। প্রতিযোগিতায় মোট ২২টি ইভেন্টে ভারত, শ্রীলংকা, নেপালসহ বিভিন্ন দেশের জাতীয় পর্যায়ে নির্বাচিত ৫৫টা টিম অংশগ্রহণ করে। দলনেতা পুনম চৌধুরী শুভ বলেন, আমরা প্রতিযোগিতায় প্রদত্ত সমস্যার ওপর ভিত্তি করে একটি অ্যাডভান্সড লাইন ও ম্যাজ সলভিং রোবট বানিয়েছিলাম, যেটা নির্দিষ্ট সময়ে বিভিন্ন সরু আঁকাবাঁকা জটিল রাস্তা পার হয়ে গšতব্যে পৌঁছতে পারে এবং চলার পথে বিভিন্ন কালার, বাধা শনাক্ত করে কোন দিকে যাবে সেটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারে। মূলত ইন্ডাস্ট্রিয়াল এরিয়া ও সামরিক খাতের নানা ঝুঁকিপূর্ণ কাজে এই প্রযুক্তির রোবটের ব্যবহার সুফল বয়ে আনবে।
চার দিনব্যাপী চলা প্রতিযোগিতার এমন পল্গ্যাটফর্মে ‘ডুয়েট নিউট্রিনো’ নামে আরেকটি দল চতুর্থ স্থান অর্জনে সমর্থ হয়। তবে সেদিন আর বেশি দূরে নয়, যেদিন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার জগতেও উন্নত দেশের মতোই প্রভাব দেখাবে বাংলাদেশি তরুণরা। তুলে ধরবে দেশের পতাকাকে উচ্চশিখরে।