অপহৃত জ্যোতিষ মাহাতাকে সুন্দরবন থেকে উদ্ধার

0
530

টাইমস প্রতিবেদক :
কয়রা থানা পুলিশ দীর্ঘ ৯ দিন অভিযান চালিয়ে বনদুস্যদের হাতে অপহৃত জ্যোতিষ মাহাতা (৪৫)কে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। জানা গেছে, গত ৯ নভেম্বর রাতে উপজেলার হরিহরপুর গ্রাম থেকে মুক্তিপনের দাবিতে বনদস্যু ফারুক বাহিনীর সদস্যরা মতিলাল মাহাতার পুত্র জ্যোতিষ মাহাতাকে অপহরন করে নিয়ে যায়। এ সময় বাধা দিলে তার ছোট ভাই ধীরেশ মাহাতাকে গুলি করে আহত করে বনদস্যুরা। বর্তমান সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
এ ব্যাপার জ্যোতিষের ভাই ঝুর্জ্যাটি মাহাতা বাদী হয়ে ৭ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে কয়রা থানায় ১টি অপহরন মামলা দায়ের করে। ঘটনার পর থেকে পুলিশ সুন্দরবন প্রতিনিয়ত অভিযান অব্যাহত রাখে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে বনদস্যু ফারুক বাহিনী সুন্দরবনের কয়রা বন টহল ফাঁড়ি সংলগ্ন মাঠের খাল এলাকায় অবস্থান করছে। সেখানে গত ১৭ নভেম্বর রাতে আনুমানিক আড়াই টার সময় পুলিশ অভিযান চালিয়ে অপহৃত জ্যোতিষ মাহাতাকে উদ্ধার করে। এ সময় পুলিশের সাথে বনদস্যুদের গুলি বিনিময় হয়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ বনদস্যুদের ১টি নৌকা উদ্ধার করে।
উদ্ধার অভিযানে অংশ নেন কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ এনামুল হক, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোস্তফা হাবিবুল্যাহ, এস আই রাজিউল আমিন, ফারুক হোসেন, কিশোর কুমার বিশ্বাস, শেখ গোলাম আযম, কামরুল ইসলাম, মাসুম বিল্যাহ, শাহাবুদ্দীন, সাঈদ আল মামুন, সায়ম হোসেন, মঠবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান, কাটকাটা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জাহিদ হোসেন, কয়রা থানার এ এস আই হাফিজুর রহমান সহ পুলিশ সদস্যরা।
কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ  এনামুল হক বলেন, জ্যেতিষ মাহাতা অপহৃত হওয়ার পর থেকে পুলিশ বিভিন্ন দল বিভক্ত হয়ে সুন্দরবন প্রতিনিয়ত অভিযান অব্যাহত রাখে। তারই ধারাবাহিকতায় তাকে উদ্ধার করা হয়। পুলিশ, র‌্যাব, বন বিভাগ ও কোষ্টগার্ডের সম্বনয়ে বনদস্যুদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখা হবে। তাছাড়া ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।