অনিয়মের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় আমাকে ফাঁসানো হয়েছে : এড. শিল্পী

0
758

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনাটাইমস:
বঙ্গবন্ধুর একান্ত সহচর, খুলনায় আওয়ামী লীগের অন্যতম সংগঠক, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সামছুর রহমান মানির পরিবারের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। সোমবার খুলনাটাইমস’র এই প্রতিবেদকের কাছে এমন অভিযোগ করেন এই পরিবারের সদস্য, মহানগর আওয়ামী লীগ সদস্য,
মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও খুলনা মহানগর দায়রা জজ আদালতের সদ্য অব্যাহতিপ্রাপ্ত (পাবলিক প্রসিকিউটর) পিপি এড. সুলতানা রহমান শিল্পী।
এরই অংশ হিসেবে তার নিয়োগ আদেশ বাতিল হয়েছে, বড় ভাই সাংসদ মিজানের বিরুদ্ধে দুদকে অভিযোগ এসেছে। ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বিশেষ মহলটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার ঘনিষ্ঠ মানুষগুলোকে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য প্রদান করছে। তাদের উদ্দেশ্য মানি পরিবারের উপর জননেত্রীর আস্থা ও সুদৃষ্টিতে ভঙ্গুর ধরানো। তার বিশ্বাস, অচিরেই সকল মিথ্যা ঘটনা ভেদ করে সত্য উন্মোচন হবে।
শিল্পী বলেন, আমি মুজিব সৈনিক। খুলনা সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচনে জিএস পদে অংশ নেই। সেই থেকে অদ্যবধি শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড হয়ে কাজ করছি। ৭৫’র ভয়াবহ দিনে আমাদের পরিবারের দিন কেটেছে অনেক কষ্টে। দলের জন্য যেমন সময়, মেধা ও শ্রম আমরা (আমি ও আমার পরিবার) দিয়েছি, তেমনি জেল-জুলুম, মামলার শিকার, ক্ষেত্রবিশেষ হেনস্তা-লাঞ্ছনাও সহ্য করেছে। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ দলের নানা সংগ্রামে একাধীকবার আমার পিতা-ভাইদের জেল খাটতে হয়েছে। তবুও কোনদিন দলের বাইরে যাইনি।
এই আইনজীবী আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের গত মেয়াদেও আমি (পাবলিক প্রসিকিউটর) পিপি হইনি। ২০১৪ সালের পর আমাকে নিয়োগ দেয়া হয়। তবে যে কারণে আমার পদ বাতিল করা হয়েছে, তার কোন ভিত্তি নেই। দীর্ঘদিন ধরেই খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির নানা অনিয়ম চলছে। এসবের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেয়ার কারণেই মহল বিশেষ আমাকে ফাঁসানোর প্রক্রিয়ায় লিপ্ত হয়েছে। ‘আমি জানতে চাই, কখন, কোথায় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি করেছি, অভিযোগকারীরা প্রমাণ করুণ-
এ প্রসঙ্গে এড. সুলতানা রহমান শিল্পী ফেসবুকে লিখেছেন-‘‘ আমি আমার পিপিশীপের জন্য মোটেই লালায়িত নই। জনননেত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে নাকি কটুক্তি করায় আমার পিপিশীপ বাতিল হয়েছে। যদিও আমি এখনও চিঠি পাইনি। আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে, তা শুধু মিথ্যাই নয়, অসম্ভবও বটে। আজন্মকাল যে রাজনৈতিক নীতি আদর্শে বিশ্বাসী সেখানে এধরনের অভিযোগ সত্যিই লজ্জাজনক ও অপমানজনক। রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র কতখানি গভীর হলে এটা ঘটতে পাওে তা বলাই বাহুল্য। বিখ্যাত দার্শনিক সক্রেটিস এর সেই উক্তিটি বলতে ইচ্ছা করছে-

I to die u to live which is better only God Knows’’