0
457

ফরিদ হাসান জুয়েল ॥ পাটকেলঘাটা(সাতক্ষীরা):
পাটকেলঘাটা অভয়তলা গ্রামের শেখ রহমত আলী বিরোধপূর্ণ জমিতে আদালত কর্তৃক জারিকৃত ১৪৫ ধারা অমান্য করে জোরপূর্বক ঘর নির্মান করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সূত্রে জানা যায়, পাটকেলঘাটা কুমিরা ইউনিয়নের রাঢ়ীপাড়া মৌজার এস, এ ৩৬৯ নং খতিয়ানের ৯৮১ দাগে ২৬ শতক জমির মধ্যে ১৭ শতক রেকর্ডীয় ও .৪ শতক ক্রয়কৃত জমি নিয়ে মৃত আব্দুল ওহাবের পুত্র বিল্লাল হোসেনসহ তার ভাইয়েরা বসবাস করে আসছিলো।
তার মধ্যে চাচাতো ভাই মৃত নজর আলীর পুত্র শেখ রহমত আলী অবৈধভাবে ৯শতক জমি জবর দখল করে আসছিলো। যার মধ্যে নিয়ে বিল্লাল হোসেনের ৪শতক জমি রয়েছে। জমির দাবী করলে বিল্লাল হোসেনসহ তার ভাইদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিতে থাকে এছাড়া জমিতে থাকা পুকুরের মাছ, গাছপালার ক্ষতি, মাটি কেটে জমির রুপ রেখা পরিবর্তন করে ঘরবাড়ী নির্মান করবে বলে হুমকি অব্যহত রাখে। উক্ত জমিতে বাড়ী-ঘর নির্মানের কাজ শুরু করে শেখ রহমত আলীসহ তার ভাই ছেলেরা। জমি রক্ষার্থে বিল্লাল হোসেন সাতক্ষীরা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ২৪/০৬/১৯ তাং, পি ৭৬৭/১৯ পাট এর ১০২৭ ফৌঃ স্মারকে মামলা করে। আদলতের বিচারক আগামী ৩১/০৭/১৯ইং পর্যন্ত ১৪৫ ধারা জারি করে পাটকেলঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ কে শান্তি শৃংখলা বজার রাখার জন্য নির্দেশ দেন সাথে সাথে এসি ল্যান্ড বিরোধপূর্ণ সম্পত্তির তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশে পাটকেলঘাটা থানা এ এস আই আবুল কালাম শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার জন্য বাড়ী নির্মানের কাজ বন্ধ রাখার রহমত আলী গং দের বলে আসেন। পরবর্তিতে পুলিশ প্রশাসনে আদেশও অমান্য করে আবারো বাড়ী নির্মান করতে শুরু করলে পুনরায় বিল্লাল হোসেন ১২৭৬ স্মারকে আদালত থেকে ১৪৫ ধারা নিয়ে আসলে পুলিশ ১৮/০৭/১৯ পুনরায় শান্তি বজার রাখা ও ঘর নির্মান না করার জন্য বলে আসে। ৩১/০৭/১৯ আদালতের দিন ধার্য থাকায় কোন কার্যক্রম করা যাবে না বলে জানান। এদিকে বিল্লাহ হোসেন তার ভাই আব্দুল কাদের ও আব্দুল মালেককে শেখ রহমত আলী তার পুত্র রবিউল ইসলাম গং রা বিভিন্ন ভাবে হুমকি অব্যহত রেখেছে। আদালতের আদেশ অমান্য করে কিভাবে রহমত আলী গংরা ঘর নির্মান করছে এটা ভুক্তভোগীসহ সচেতন ্এলাকাসাীর প্রশ্ন?