৩৭ জন নবীন স্থপতির গবেষণা কর্মের ডিজাইন প্রদর্শিত হবে

0
130

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১৪ জুলাই খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপত্য ডিসিপ্লিনে দুদিনব্যাপী আর্ক-কেইউ ডিগ্রি শো শুরু হবে। ডিসিপ্লিনের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থীদের ব্যাচেলর অব আর্ক প্রোগ্রাম সমাপ্তির সাফল্যকে উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে উদযাপনে বছরে একবার এ আয়োজন করা হয়ে থাকে। সকাল সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সত্যেন্দ্রনাথ বসু একাডেমিক ভবনের তৃতীয় তলায় আয়োজিত এই প্রদর্শনী উদ্বোধন করবেন প্রধান অতিথি উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। সভাপতিত্ব করবেন স্থাপত্য ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. খন্দকার মাহফুজ-উদ-দারাইন।
এই প্রদর্শনীতে প্রদর্শিত হবে খুলনায় প্রস্তাবিত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির প্রস্তাবিত ডিজাইন, রূপসা ব্রিজের পূর্ব তীরে পাঁচতারা হোটেল, ফুলতলায় মানসিক হাসপাতাল, মংলায় নৌবাহিনীর আঞ্চলিক হেডকোয়ার্টার, গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু দারিদ্র বিমোচন কেন্দ্র, ঢাকায় ন্যাশনাল ডিজাইন ইনস্টিটিউট, নওগাঁর আতাইকুলায় গণহত্যা মিউজিয়াম, মেহেরপুরে মুজিব নগর স্থলবন্দর, পায়রা বন্দরে জাহাজ নির্মাণের জন্য কারখানা, যশোরে ফুল প্রসেসিং কেন্দ্র, ঢাকার পূর্বাচলে ব্রিটিশ চিন্তা বহির্ভূত যুগোপযোগী শিক্ষা কমপ্লেক্স প্রস্তাবিত নকশাসহ ৩৭ জন নবীন স্থপতির গবেষণা কর্মের ডিজাইন।
স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের শেষ বর্ষের উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ডিজাইন থিসিস জনসাধারণের মাঝে প্রদর্শনীর জন্য একটি প্লাটফরম হিসেবে এই প্রদর্শনী কাজ করে আসছে। এছাড়া এই প্রদর্শনী গুরুত্বপূর্ণ চাকরির সুযোগ প্রদানকারী, গুরুত্বপূর্ণ জনপ্রতিনিধি এবং শিক্ষার্থীদের পরিবার ও বন্ধুদের ডিজাইনসমূহ প্রদর্শনের সাথে সাথে আলোচনার সুযোগ করে দেয়।
সাধারণত প্রত্যেক প্রোজেক্টই বাস্তব ভিত্তিক সমস্যার চিহ্নিতকরণ এবং এর জন্য ডিজাইননির্ভর সমাধানের জন্য কাজ করেছে। এই প্রদর্শনীতে থাকবে সৃজনশীল পোস্টার, মডেল এবং এনিমেশন যা স্থাপত্য জগতে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর অবদান। এ বছর আর্ক-কেইউ ডিগ্রি শোতে সর্বমোট ৩৭ জন শিক্ষার্থীর গবেষণাকর্ম স্থান পাচ্ছে।
এই প্রদর্শনীতে নবীন স্থপতিদের উদ্বাবনী ও সৃজনশীল চিন্তা ও কর্ম এসব ডিজাইনের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। এর মাধ্যমেই বাংলাদেশের পরিকাঠামোর পরিবর্তন, নান্দনিক সৌন্দর্য্যবোধ সৃষ্টি তথা দেশের পরিকল্পিত অবকাঠামো উন্নয়নে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য শিক্ষার পরিব্যাপ্তি ও উৎকর্ষের ছাপ ফুটে উঠেছে। প্রদর্শনী বিকাল ৫ টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য খোলা থাকবে।