হার্ট সুস্থ্য রাখতে করনীয়

0
60

খুলনাটাইমস স্বাস্থ্য: বিশ্বজুড়ে বেড়ে চলা হৃদরোগসহ কার্ডিওভাস্কুলার রোগ, স্ট্রোক এসবের ব্যাপারে মানুষকে সচেতন করে তুলতেই এই দিবস পালিত হয়। চলতি বছর এ দিবসের প্রতিপাদ্য হলো- ‘মাই হার্ট, ইয়োর হার্ট’, যার মাধ্যমে সবার হৃৎপি- সুস্থ থাকুক তা কামনা করা হচ্ছে। এ বছর ওয়ার্ল্ড হার্ট ফেডারেশন হার্ট হিরোদের নিয়ে একটি কমিউনিটি করার দিকে মনোযোগ দিচ্ছে। সব স্তরের মানুষ, যারা দীর্ঘদিন বাঁচতে চান, সুস্থ হৃৎপি-ের অধিকারী হতে চান, তারা নিচের সব প্রতিজ্ঞা করতে পারেন:
# পরিবারে স্বাস্থ্যকর খাবার রান্না করা ও খাওয়ার প্রতিজ্ঞা করা। সন্তানরা যেন বেশি শারীরিক পরিশ্রম করে, ধূমপান না করে তা নিশ্চিত করা।
# স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে রোগীদের কোলেস্টেরল লেভেল কমানো ও ধূমপান ত্যাগ করার বিষয়ে প্রতিজ্ঞা করা।
# রাষ্ট্রের নীতি নির্ধারক হিসেবে জনগণের হৃৎপিন্ড সুস্থ রাখার সব নীতি বাস্তবায়ন করার প্রতিজ্ঞা করা।
# কর্মজীবী হিসেবে হৃৎপিন্ড সুস্থ রাখবে, তেমন অফিস গড়ে তোলার প্রতিজ্ঞা করা।
২০০০ সালে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় ওয়ার্ল্ড হার্ট ফাউন্ডেশন গড়ে তোলার পর থেকে ওয়ার্ল্ড হার্ট ডে পালিত হচ্ছে। সংস্থাটির সদস্য ২০০ এর বেশি দেশ। বিশ্বজুড়ে হৃদরোগে অকালে মৃত্যুর হার কমানোর বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির কাজ করছে সংস্থাটি।
প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে কার্ডিও ভাস্কুলার রোগ- স্ট্রোক ও হৃদরোগে ১ কোটি ৭৯ লাখ মানুষ মারা যান। এ বিষয়টিকে সামনে রেখে বিশ্ব হার্ট দিবসে মানুষ যেন কার্ডিওভাস্কুলার রোগ থেকে সতর্ক থাকে, অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া বন্ধ করে, শারীরিক পরিশ্রম করে সে বিষয়ে আলোকপাত করা হয়। এসব সতর্কতায় হৃদরোগ ও স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে অকালে মানুষ মারা যাওয়ার হার ৮০ শতাংশ কমে যাবে। তথ্যসূত্র: বোল্ড স্কাই


একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here