সাতক্ষীরায় ইকো ট্যুরিজম গড়ে তোলা হবে -প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান

0
208

মেহেদী আলী সুজয়, সাতক্ষীরা :
ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার বঙ্গবন্ধু স্মুতি পাঠাগার ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুলের উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার (১৮ মার্চ) দুপুরে সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুর রাজ্জ্ক পার্কে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগারের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুনসুর আহমেদ’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ও উদ্বোধক হিসেবে ফলক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান এমপি। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগার ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম, সালমান এফ রহমানের একান্ত সচিব জাহিদুল ইসলাম ভুঁইয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইলতুতমিশ, পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের অধক্ষ প্রফেসর এস.এম আফজাল হোসেন, সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের অধক্ষ প্রফেসর মো. আব্দুল খালেক, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল খায়ের সরদার, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপ্পি, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফিরোজ কামাল শুভ্র, বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুলের সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক ডা. আবুল কালাম বাবলা, জেলা শিক্ষা অফিসার এস.এম আব্দুল্লাহ আল-মামুন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মীর মাহমুদ হাসান লাকি, মীর তানজীর আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শেখ হারুন উর রশিদ, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক শেখ নুরুল হক, প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুলের শিক্ষার্থী ও সাতক্ষীরার শিল্পীদের সমন্বয়ে মনোঙ্গ সাংস্কুতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মকসুমুল হাকিম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন,‘মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের চিন্তা চেতনা বঙ্গবন্ধুর অনেক আগে থেকে। সেজন্য এ দেশ স্বাধীন হয়েছে। বহুদিন ধরে সাতক্ষীরার প্রতি আমার অনেক প্রাণের টান আছে। এজন্য এ জেলার উন্নয়নে কিছু করতে চাই। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগারে স্থাপিত ছবিগুলি অনেক দূর্লভ। কম্পিউটারের যুগে মানুষ বই পড়া ভুলে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগার মানুষকে বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলবে। সাতক্ষীরায় দ্রুত ইকোনোমিক জোন এবং ইকো ট্যুরিজম গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হবে।